নয়াদিল্লি: ভারতীয় দলে ফেরা প্রত্যাশী আইপিএলে তিনটি হ্যাটট্রিকের মালিক অমিত মিশ্র। ৩৭ বছর বয়সি এই লেগ-স্পিনার সর্বশেষ ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে ভারতীয় দলে খেলেছেন৷ টিম ইন্ডিয়ার জার্সিতে টি-২০ খেলেন তিনি৷ আর শেষ টেস্ট খেলেছেন ২০১৬ সালে৷ কিন্তু ফের ভারতীয় দলে প্রত্যাবর্তনের ব্যাপারে আশাবাদী এই লেগ-স্পিনার৷

ক্রিকেট.কম-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মিশ্র বলেন, ‘অবশ্যই আমি করব! এজন্য আমি এখনও খেলছি। আমি এমন কেউ নই যে, শুধু আইপিএল খেলতে থাকব। আমার লড়াই আমার সঙ্গে। ভারতীয় দলের কাছ থেকে ডাক এলে আমি সবসময় প্রস্তুত৷ আর প্রস্তুত থাকার জন্য আমি নিজেকে তৈরি রাখছি৷ এটাই আমার বিশ্বাস। হ্যাঁ, আমি এখনও প্রত্যাবর্তনের আশাবাদী৷’

অবসর তাঁর মনকে বারবার আলোড়িত করলেও নিজেকে এখনও অনুপ্রাণিত করার যথেষ্ট রসদ পান হরিয়ানার এই লেগ-স্পিনার৷ তিনি বলেন, ‘আমি সর্বদা চিন্তাভাবনা করার চেষ্টা করেছি যে, যদি আমি ডিমোটিভেটড হয়, তাহলে কী করে এই সুবিধা পাব? এটি আমার প্রতিযোগীদের উপকৃত করবে। প্রতিটি প্রত্যাখ্যানের পরে, আমি আমার দক্ষতা নিয়ে আরও কঠোরভাবে চেষ্টা করেছি।’

দেশের হয়ে ২২টি টেস্ট খেলা এই লেগ-স্পিনার বলেন, ‘আমি সর্বদা নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করেছি৷ কারণ জীবনে খুব কম লোকই রয়েছেন. যারা আপনাকে নিচে নামার সময় আপনাকে অনুপ্রাণিত করে। তবে নিজের অনুপ্রেরণা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যখন খুব বেশি সাফল্য না-দেখি তখন আমরা সকলেই হতাশাবোধে ঘিরে থাকি। আমরা যদি আরও কঠোর পরিশ্রম করার চেষ্টা করি, তবে সাধারণত অন্ধকারের চিন্তাভাবনাগুলি দূরে যায়৷’

ভারতের হয়ে ২২টি টেস্ট ছাড়াও ৩৬টি ওয়ান ডে এবং ১০টি টি-২০ ম্যাচ খেলেছেন মিশ্র৷ তিনি বলেন, ‘বয়স আপনার পারফরম্যান্স বিচার করার মানদণ্ড হওয়া উচিত নয়। কোনও খেলোয়াড় ফিট কিনা তা সর্বদা দেখতে হবে। আমি মনে করি যুবরাজ সিং বা হরভজন সিং বা বীরেন্দ্র সেহওয়াগের মতো খেলোয়াড়দের তাদের ভবিষ্যতের বিষয়ে কী ভাবছিল তা নিয়ে তাদের কথা বলা উচিত ছিল।’

আইপিএলের ইতিহাসে দ্বিতীয় সফল বোলার (লাসিথ মালিঙ্গার পরে) আরও বলেন, ‘আপনি তাদের ক্ষমতা বা আবেগ সন্দেহ করবেন না। তারাও কঠোর পরিশ্রম করে। তবে আমি মনে করি যদি তাদের কিছু না-থেকে থাকে৷ তবে তারা ফিটনেস বলছে, তবে তাদের অবশ্যই বলা উচিত যা প্রয়োজন বা তাদের কাছ থেকে কী প্রত্যাশিত।’

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা