ইসলামাবাদ: পাকিস্তানের দায়িত্ব পেয়ে ভারতের জন্য সুসম্পর্কের ইঙ্গিত দিলেন ইমরান খান৷ সাংবাদিক বৈঠকে প্রথমেই কাশ্মীর সমস্যাকে গুরুত্ব দিলেন৷ জানালেন, দ্রুত সমস্যা সমাধানের পথ খুঁজবেন৷

আরও পড়ুন- ইমরানকে অগ্রিম শুভেচ্ছা জেমিমার

আলোচনাই একমাত্র কাশ্মীর সমস্যার সমাধান, তাই আলোচনায় বসেই সমস্য়া সমাধানের ইঙ্গিত দিলেন পাকিস্তানের সম্ভাব্য প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান৷

আরও পড়ুন- ইমরানকে জয়ের আগাম শুভেচ্ছা কপিল দেবের

কাশ্মীরের সমস্যা গুরুতর, তবে সমস্যা সমাধান সম্ভব, জানালেন ইমরান৷ দুটি দেশ মুখোমুখি টেবিলে বসলেই একটা পথ বেরোবে৷ প্রতিবেশী দেশ হিসেবে ভারত পাকিস্তানের কাছে গুরুত্বপূর্ণ, তাই কোনওভাবেই কাশ্মীর প্রসঙ্গকে কারণ করে দুই দেশ তিক্ততা বয়ে নিয়ে যাবে না৷ উপমহাদেশগুলির সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতিতেও কাশ্মীর গুরুত্বপূর্ণ বলে জানান ইমরান৷

সুসম্পর্কের বার্তার মাঝেই অভিযোগের স্বরও শোনা যায়৷ ইমরানের দাবি, ভারতীয় মিডিয়া তাঁকে ‘ভিলেন’ করে রেখেছে৷ যা কোনভাবেই কাম্য নয়৷ পাশাপাশি কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলেও জানান ইমরান৷ তারপরেই ইমরানের সদর্থক বন্ধুত্ব বার্তা, কাশ্মীর সমস্যায় ভারত এক পা এগোলে পাকিস্তান দুই পা এগোবে৷ পারস্পরিক শত্রুতা ভুলে ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্ব চায় ইমরান শাসিত পাকিস্তান৷

আরও পড়ুন- অক্সফোর্ডের প্রাক্তনীই বসছেন পাক মসনদে! কেমন ছিল ইমরানের রঙিন জীবন?

প্রথম থেকেই দুর্নীতিমুক্ত পাকিস্তান গড়ার বার্তা দিয়েছে ইমরানের তেহেরিক-ই-পাকিস্তান৷ অবশ্য, ভোটে রিগিংয়েরও অভিযোগ উঠেছে ইমরানের দলের বিরুদ্ধে৷ সবকিছুই আপাতত ব্রাত্য৷ একগাদা আশ্বাস দিয়ে ক্ষমতায় ইমরান৷ যাঁর বিদেশনীতি প্রথম ধাপেই ভারত-পাকিস্তান সুসম্পর্ক৷ অবশ্য, আইএসআই-হাফিজ সঈদের মদতকারী দেশ পাকিস্তানে সেই ধাপ আদৌ বাস্তব হবে কি না, সে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে৷