হায়দরাবাদ: দেশ জুড়ে এই মুহূর্তে চলছে লকডাউন। করোনা মহামারীর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ করার জন্য কেন্দ্রের তরফে জারি করা হয়েছে লকডাউনের নির্দেশিকা।

পাশাপাশি চিকিৎসক এবং প্রশাসনিক তরফেও আপ্রাণ চেষ্টা করা হচ্ছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার। তবে তার মধ্যে দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন( ডিআরডিও) তরফে নেওয়া হল এক গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।

তাদের তরফে নিয়ে আসা হয়েছে এক টাওয়ার যার অতিবেগুনি রশ্মির সাহায্যে করোনা সংক্রমিত এলাকাতে স্যানিটাইজেশন করা যাবে।

এই যন্ত্রটির নাম রাখা হয়েছে ইউভি ব্লাস্তার। এটি এক প্রকার ইলেকট্রনিক যন্ত্র। এই টাওয়ারের সাহায্যে যে জায়গার জীবানু পরিস্কার করা সম্ভব হয় না তা সহজেই করা সম্ভব হবে অর্থাৎ ল্যাপটপ সহ একাধিক ইলেকট্রনিক গ্যাজেটের খুব সহজেই জীবানুমুক্ত করা যাবে। স্যানিটাইজ করা যাবে নোট কিংব কাগজকেও।

পাশাপাশি জনবহুল এলাকা যেমন ষ্টেশন, এয়ারপোর্ট সহ শপিং মল এবং একাধিক অফিসেও জীবাণু মুক্ত করার কাজ খুব সহজেই এই যন্ত্রের সাহায্যে করা যাবে। এই যন্ত্রটি তৈরি করেছে দিল্লির লেসার সাইন্স অ্যান্ড টেকনোলোজি সেন্টার এবং তার সঙ্গে সহযোগিতা করেছে গুরুগ্রামের নিউ এজ ইন্সত্রুমেন্ত অ্যান্ড মেটেরিয়াল প্রাইভেট লিমিটেড।

এই যন্ত্রে ছটি ল্যাম্প রয়েছে একটি ১২/১২ ফুটের ঘরকে জীবানুমুক্ত করতে এই যন্ত্রের মাত্র ১০ মিনিট সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এর পাশপাশি এই যন্ত্র ৪০০ স্কোয়ার ফিট এলাকা মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে জীবানুমুক্ত করতে পারবে। অর্থাৎ করোনা যুদ্ধে এই যন্ত্র যে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে চলেছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ