নয়াদিল্লি: শুক্রবার সকালে তেলেঙ্গানা ধর্ষণ কাণ্ডের প্রধান চার অভিযুক্ত পালানোর চেষ্টা করাতে বাধ্য হয়ে গুলি চালিয়েছিল হায়দরাবাদ পুলিশ আধিকারিকেরা। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদাম্বরম এই ঘটনার জন্য তদন্তের দাবি করেছেন। আদৌও এই এনকাউন্টার সঠিক কিনা তা যাচাই করার জন্য এই দাবি তুলেছেন তিনি।

গত ২৭ নভেম্বর হায়দরাবাদে পশু চিকিৎসককে গণধর্ষণ করে জ্বালিয়ে দেওয়ার ঘটনার পর থেকে নড়েচড়ে বসেছিল সকলে। বিদ্বজ্জন থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষেরা পর্যন্ত ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছিল। বিভিন্ন জায়গাতে শুরু হয়েছিল ধর্না। দোষীদের কঠিন থেকে কঠিনতম শাস্তির দাবিতে গলা তুলেছিল সাধারণ মানুষ। যা অবশেষে মিলল শুক্রবার সকালে। আর এই ঘটনা পরিচিত হবে ‘দিশা’ নামে এমনটাই জানা গিয়েছে।

পুলিশের তরফ থেকে জানা গিয়েছে ওই চার অভিযুক্তকে নিয়ে ঘটনাস্থলে যাওয়ার পরে তাঁরা সেখান থেকে পালানোর চেষ্টা করে এবং একজন পুলিশের বন্দুক কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। তাই আত্মরক্ষার জন্য বাধ্য হয়ে গুলি চালাতে হয়েছে। আর পুলিশের এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়েছেন সেলেব থেকে সাধারণ মানুষেরা।

যদিও এই বিষয়টি নিয়ে অনেকে প্রশ্ন তুলছেন। আইন নিজেদের হাতে তুলে নেওয়া ঠিক হল কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন করছেন অনেকে। কিন্তু এই মুহূর্তে হায়দরাবাদ পুলিশের আধিকারিকদের অভ্যর্থনা জানাতে ব্যস্ত সকলে।

পি চিদম্বরম জানিয়েছেন তিনি পুলিশের এই পদক্ষেপের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানেন না। যদিও নির্যাতিতার পরিবারের তরফ থেকে এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানানো হয়েছে। এছাড়া নির্ভয়া কাণ্ডে নির্যাতিতা তরুণীর পরিবারের সদস্যরা এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়েছেন।

একজন দায়িত্বপ্রাপ্ত নাগরিক হিসেবে তিনি চান পুলিশের এই পদক্ষেপের যাচাই করা হোক। ঘটনার সত্যতা সকলের সামনে আসুক। এই এনকাউন্টারের সত্যতা যাচাই করা প্রয়োজন।

যদিও আইএনএক্স কাণ্ডে দীর্ঘদিন জেলে থাকার পরে বৃহস্পতিবার জেল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তারপরে এই ধরনের মন্তব্য করেছেন।