তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: হায়দরাবাদ কাণ্ডে জড়িত চার অভিযুক্তের পুলিশি এনকাউন্টারে মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই উল্লাসে ফেটে পড়লেন বাঁকুড়া সম্মিলনী কলেজের ছাত্র ছাত্রী থেকে অধ্যাপক-অধ্যাপিকারা। শুক্রবার কলেজে তেলেঙ্গানা পুলিশের নামে জয়ধ্বনী দেওয়ার পাশাপাশি চলল দেদার মিষ্টি মুখ।।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি হায়দরাবাদের পশু চিকিৎসক ২৬ বছরের তরুণী প্রিয়াঙ্কা রেড্ডিকে ধর্ষণের পর পুড়িয়ে খুনের ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই দেশ জুড়ে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। সমাজের বিভিন্ন মহল থেকে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানানো হয়। সাইবারাবাদ পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে ওই তরুণী চিকিৎসকের আধপোড়া দেহাংশ উদ্ধারের চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যেই চার অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে।

মহম্মদ আরিফ (২৬), জল্লু শিবা (২০), জল্লু নবীন (২০) এবং চিন্তকুন্ত চেন্নাকেশভুলু (২০) নামে এই চার জনই লরির খালাসি। শুক্রবার সকাল থেকে সংবাদমাধ্যমে এই চার অভিযুক্তের পুলিশি এনকাউন্টারে মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই উল্লাসে ফেটে পড়ে গোটা দেশ। বাদ যায়নি রাজ্যের দক্ষিণের জেলা বাঁকুড়াও।

বাঁকুড়া সম্মিলনী কলেজের ছাত্রী সুস্মি পাত্র তেলেঙ্গানা পুলিশকে তাদের কাজের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, সঠিক কাজ করেছেন ওরা। এই রকমটাই হওয়া উচিৎ ছিল। দেশের সর্বত্র এই ধরণের অপরাধীদের শাস্তির ক্ষেত্রে এই ধরণের পুলিশী এনকাউন্টারের পক্ষেই জোরালো সওয়াল করেন তিনি।

কলেজের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক সুদীপ বন্দোপাধ্যায়ও এই ঘটনায় পুলিশের ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, সারা দেশে যেভাবে ধর্ষণের মতো ঘটনা ঘটছে তাতে অপরাধীদের এই ভাবেই এনকাউন্টার করে মারা উচিৎ। নির্ভয়া কাণ্ডের পর সংশ্লিষ্ট অপরাধীরা এখনও শাস্তি পায়নি। কিন্তু ভারতবর্ষের প্রাচীণ ইতিহাসে এই ধরণের ঘৃণ্য কাজে চরম শাস্তি দেওয়ার ঘটনার উল্লেখ রয়েছে। আজকের এই দিনটি দেশের মেয়েদের কাছে ‘স্বাধীনতা দিবস’ হিসেবে পালনের ডাক দেন তিনি।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা