স্টাফ রিপোর্টার,বাঁকুড়া: এক গৃহবধূর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘিরে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়াল বাঁকুড়া সদর থানা এলাকার পাতাকোলা গ্রামে। মৃতার নাম রুমা পাল। মৃত্যুর ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগ তুলে মৃতার বাপের বাড়ির তরফে তার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ির নামে বাঁকুড়া সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, গত ২০১৭ সালের ৮ মে খাতড়ার মুরগাপাহাড়ি গ্রামের রুমা দাসের সঙ্গে বাঁকুড়া সদর থানা এলাকার রাজীব চঁন্দের সম্বন্ধ করে বিয়ে হয়। তাঁদের একটি দু’বছরের মেয়েও আছে। মৃতা রুমা পালের বাপের বাড়ির তরফে অভিযোগ, বিয়ের পর থেকে জামাই রাজীব চন্দ টাকার জন্য চাপ দিত। বাপের বাড়ি থেকে মেয়ে টাকা আনতে অস্বীকার করত বলেও অভিযোগ। এই ঘটনার মাঝেই মেয়েকে খুন করে আগুন জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ। বৃহস্পতিবার রাতে মৃতার বাপের বাড়ির লোকজন অভিযুক্তদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

যদিও খুনের অভিযোগ অস্বীকার করেছে অভিযুক্তের পরিবার। মৃতা রুমা দাসের শাশুড়ির দাবী, খুন নয়। গায়ে আগুন দিয়েই আত্মহত্যা করেছে বৌমা।

পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠিয়েছে। একই সঙ্গে ঘটনার তদন্তের পাশাপাশি অভিযোগের ভিত্তিতে জামাই রাজীব চন্দ, তার বাবা শ্রীনিবাস চন্দকে আটক করেছে বলে জানা গেছে।

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I