নিউ ইয়র্ক: ম্যাগির মতোই বিপাকে পড়েছে আর এক জনপ্রিয় ফাস্ট ফুড রিটেলর সংস্থা ম্যাকডোনাল্ডসও। বৃহস্পতিবার, ম্যাকডোনাল্ডস-এর প্রায় তিন হাজার কর্মী দেশজুড়ে বিক্ষোভে শামিল হয়েছেন। তাদের দাবি, তাদের পরিশ্রম ও ঘামের বিনিময়ে ম্যাকডোনাল্ডস সংস্থাকে কর্মীদের ঘণ্টা প্রতি বেতনে অন্তত ১৫ ডলার যোগ করতে হবে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মিছিল বার করে শিকাগোয় সংস্থার হেডকোয়ার্টারের বাইরে প্রতিবাদ জানাতে থাকেন এই ফাস্ট ফুড চেনের কর্মীরা।  প্রতিবাদীরা প্রায় ১.৪ মিলিয়ন মানুষের স্বাক্ষর-সহ এক প্রতিবাদপত্রও যোগাড় করেছেন। যেখানে দাবি করা হয়েছে, প্রত্যেকের বেতন ঘণ্টা প্রতি অন্তত ১৫ ডলার করতে হবে।

এই প্রতিবাদের সূত্রপাত যখন ম্যাকডোনাল্ডসের সিইও স্টিভ ইস্টারব্রুক সংস্থার শীর্ষ কর্তাদের বেতন বেশ কয়েকগুণ বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেন। কর্মীদের দাবি, বেতন বৃদ্ধি নিয়ে তাদের দীর্ঘদিনের দাবি না মেনে সংস্থার কর্তাদের বেতন এল লাফে বহুগুণে বাড়ানো হয়েছে। যদিও এই প্রতিবাদে এতটুকু বিচলিত নন স্টিভ ইস্টারব্রুক। তাঁর বক্তব্য, মুষ্টিমেয় কয়েকজনের বেতন বৃদ্ধি করতে পেরে তিনি ‘গর্বিত’। mcdonalds-2

তিন সন্তানের মা কোয়্যাঞ্জা ব্রুকস এদিনের প্রতিবাদে সামিল হয়ে দাবি করেন, “আমি ঘণ্টা প্রতি ৭.২৫ ডলার করে পারিশ্রমিক পাই। তাই আজ আমরা সংস্থার মালিকদের বলতে এসেছি, শীর্ষ আধিকারিকদের বেতন না বাড়িয়ে আমাদের মতো কর্মীদের বেতন বাড়াও। আমাদের দাবি, এখনই ঘণ্টাপ্রতি বেতন ১৫ ডলার করা হোক। আমরা সকলে মিলে এই দাবিতে একটি ইউনিয়ন তৈরি করব।”  কর্মীরা সকলে মিলে এই স্বাক্ষর-সহ প্রতিবাদপত্র সংস্থা কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দিতে গেলে কর্তৃপক্ষ নিরাপত্তারক্ষীদের পাঠিয়ে বাধা দিয়েছে বলেও অভিযোগ ওঠে। যদিও সংস্থা সূত্রে এক বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, প্রতিবাদপত্রটি সসম্মানে গ্রহণ করা হয়েছে।