কলকাতা২৪x৭: বায়ার্নে ‘কচুকাটা’ বার্সেলোনা। এ যেন এক অভিশপ্ত রাত। যে রাত হয়তো দুঃস্বপ্নেও কখনও ভাবেননি বার্সেলোনা অনুরাগীরা, সেই রাতটাই হয়তো আগামী কয়েকদিন দুঃস্বপ্নেই তাড়া করে ফিরবে কাতালান ক্লাব এবং অনুরাগীদের। এযাবৎ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে সবচেয়ে বড় জয়টা এদিন বার্সেলোনার বিরুদ্ধে ছিনিয়ে নিল বায়ার্ন মিউনিখ।

এর আগে গ্রুপ স্টেজে রিয়াল মাদ্রিদ, লিভারপুল প্রতিপক্ষকে ৮ গোলে দিলেও নক-আউটে এই প্রথম ৮ গোলের ঘটনা ঘটল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে সবচেয়ে কদর্য ফুটবল খেলে ২-৮ গোলে হারল বার্সেলোনা। তবে এই ফলাফল বার্সেলোনার ফুটবল ইতিহাসে সবচেয়ে লজ্জাজনক ফলাফল নয়। এর আগে একই ব্যবধানে সেভিয়ার কাছে হেরেছে কাতালান ক্লাবটি। তবে সেটা প্রায় সাড়ে আট দশক আগের কথা।

চল্লিশের দশকে এর চেয়েও বড় ব্যবধানে প্রতিপক্ষ মাটি ধরিয়েছে বার্সেলোনাকে। একনজরে দেখে নেওয়া যাক প্রথম পাঁচ-

১. সেভিয়া ১১ – বার্সেলোনা ১ (১৯৪০)

লা লিগার ম্যাচে সেভিয়ার বিরুদ্ধে প্রথমে এক গোলে এগিয়ে গিয়েও পরে ১১ গোল হজম করেছিল কাতালান ক্লাব। ২৩ থেকে ৮৩ মিনিটের মধ্যে বার্সেলোনার জালে ১১ বার বল ঢুকিয়েছিল প্রতিপক্ষ।

২. রিয়াল মাদ্রিদ ১১ – বার্সেলোনা ১ (১৯৪৩)

কোপা দেল রে প্রতিযোগীতার সেমিফাইনালে প্রথম লেগে ৩-০ জয়ের পর দ্বিতীয় লেগে চির-প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিরুদ্ধে লজ্জার হার স্বীকার করতে হয়েছিল বার্সেলোনাকে

৩. সেভিয়া ৮ – বার্সেলোনা ০ (১৯৪৬)

ফের কোপা দেল রে প্রতিযোগীতায় সেভিয়ার কাছে আরও একবার হতাশাজনক ফলাফলের সাক্ষী থাকতে হয়েছিল বার্সেলোনাকে।

৪. রিয়াল মাদ্রিদ ৮ – বার্সেলোনা ২ (১৯৩৫)

শুক্রবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে যে ব্যবধানে বায়ার্নের কাছে হারতে হল বার্সেলোনাকে, সেই একই ব্যবধানে ৮৫ বছর আগে রিয়ালের কাছে হেরেছিল কাতালান ক্লাব। ওই ম্যাচে একাই ৪ গোল করেছিলেন ফার্নান্দো সানুদো। যা রিয়াল-বার্সা দ্বৈরথে এখনও অবধি রেকর্ড।

৫. বায়ার্ন মিউনিখ ৮ – বার্সেলোনা ২ (২০২০)

১৪ অগস্ট, ২০২০ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে অন্যতম এবং নিজেদের সবচেয়ে লজ্জাজনক হারের সাক্ষী থাকল বার্সেলোনা। যা গত ৭৪ বছরে ক্লাবের সবচেয়ে লজ্জাজনক ফলাফল।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও