শিলিগুড়ি: সবজি বোঝাই করা গাড়ি যাচ্ছে। পশ্চিমবঙ্গের সীমান্ত পেরিয়ে তা প্রবেশ করবে বিহারে। সেটিই ওই পিকআপ ভ্যানের গন্তব্য।

আরও পড়ুন- ‘কারণ’ বারণ বিহারে

আপাতভাবে এমনই মনে হয়েছিল ডবলুবি ৭৭ সি ৫৭৭৩ নম্বরের গাড়িটি দেখে। কিন্তু এর পিছনে ছিল অন্য কাহিনী। সেই কাহিনীর খবর সূত্র মারফত আগাম পেয়ে গিয়েছিল পুলিশ। ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের কাছে গাড়ি থামাতেই পালিয়ে গেল গাড়ির চালক।

গাড়িতে বোঝাই করা সব্জির বস্তা খুলতেই চক্ষু চড়ক গাছ অবস্থা পুলিশের। কারণ সবজির আড়ালে রয়েছে মদের বোতল। সমগ্র গাড়িতে এই ভাবেই নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল বিপুল পরিমাণ মদ। যার সবই জাল। পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে উদ্ধার হওয়া মদের মোত বাজারদর প্রায় আট লক্ষ টাকা।

আরও পড়ুন- ‘কারণ’ বারণে নয়া বিপদে বিহার

সোমবার সকালের দিকে ঘটনাটি ঘটেছে শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের অন্তর্গত ফাঁসিদেওয়া ব্লকে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে রাস্তায় ফাঁদ পাতে বিধান নগর ইনভেস্টিগেশন সেন্টারের পুলিশ। গাড়ি থামাতেই পালিয়ে যায় গাড়ির চালক। গাড়ির নম্বরের সূত্র ধরে অপরাধীদের খোঁজ করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

গত প্রায় তিন বছর ধরে বিহারে মদ নিষিদ্ধ। ওই রাজ্যের সরকার মদ নিষিদ্ধ করলেও চোরাপথে মদের কারবার চলছিলই। বিভিন্ন সময়ে লুকিয়ে মদ্যপান বা মদের কারবার করতে গিয়ে অনেকে ধরাও পরেছে। এই গ্রেফতার হওয়া ব্যক্তিদের তালিকায় গুজরাতের কোটিপতি একাধিক ব্যবসায়ীও আছে। এতকুচুর পরেও বিহারে সম্পূর্ণরুপে মদ বন্ধ হয়নি। গোপনে মদের কারবার চলছিলই।

বাংলা থেকে বিহারে মদ পাচার করা হচ্ছে এবং এই পাচার হওয়া মদের সবই নকল। এই উপায়ে উত্তরবঙ্গের একদল অসাধু মানুষ বিপুল অর্থ উপার্জন করছে। পুলিশের কাক্সছে এই খবর এসেছিল অনেক আগেই। সেই অনুযায়ীই আসরে নামে পুলিশ। সেই তদন্তের অঙ্গ হিসেবেই এদিন অভিযান চালানো হয়।