স্টাফ রিপোর্টার, মেদিনীপুর: এ যেন সেই রবি ঠাকুরের ছোটগল্পের সংজ্ঞা- ‘শেষ হয়েও হইল না শেষ’ এর মতো৷ ভোট মিটেও যেন ভোট মেটেনি৷ গোয়ালতোড়ে কেরুমারির জঙ্গল থেকে উদ্ধার হল জেলাপরিষদের ব্যালট পেপার৷

যা নিয়ে চরম উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়৷ বিজেপি প্রার্থী পশুপতি মাহাতোর দাবি, জঙ্গল থেকে উদ্ধার হওয়া ওই ব্যালটে সব তার প্রতীকে ছাপ আছে।

এদিকে শাসকদল তৃণমূলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসের অভিযোগে শনিবার সকাল থেকেই পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশিয়াড়ি ব্লকে বনধ শুরু করেছে বিজেপি। ব্লকের সবকটি গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপি দখল করেছে।

পঞ্চায়েত সমিতির ২১টা আসনের মধ্যে ১৬টা জিতেছে বিজেপি।কিন্তু তূণমুল জোর করে দুটি জেলা পরিষদ সিট দখল নেয়ার অভিযোগ তুলে এই বনধের ডাক দেয় জেলা বিজেপি।

দলের জেলা সভাপতি সমিত দাস বলে ওখানে পঞ্চায়েত সমিতির ১৬টা আসনের মধ্যে বিজেপি সবকটি আসনে জিতলেও জোর করে ৩টা আসনের শংসাপত্র আটকে রাখে তৃণমূল।

অন্যদিকে জেলা পরিষদের ২টা সিটে রাত ১২টা অবধি বিপুল ভোটে এগিয়ে থাকলেও ১২টার পর তূণমুলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতির উপস্থিতিতে ব্লকের বিডিও,ওসির সহযোগিতায় ছাপ্পা মেরে ২টা আসনে বিজেপি কে হারিয়ে দেয়। এই ভাবে কেশিয়াড়ি ব্লকে গণতন্ত্র হত্যা করছে তূণমুল।

তূণমুল বলছে তারা ৯০%এলাকায় জিতেছে৷ তাও তাদের মন মানেনি যেখানে বিরোধীরা জিতেছে সেখানেও গণতন্ত্র হত্যা করছে। অন্যদিকে জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷