স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: বৃহস্পতিবার সকালে উত্তর ২৪ পরগনার শ্যামনগরে নিজের ঠাকুরমার শ্রাদ্ধের ঘাট কাজ করতে এসে গঙ্গায় তলিয়ে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে গেল এক স্কুল ছাত্র। নিখোঁজ ওই স্কুল ছাত্রের নাম দীপ কুমার পাল (১৭)। সে এবছরের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ছিল বলে জানা গিয়েছে৷

বৃহস্পতিবার সকালে পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গেই ঠাকুরমা মারা যাওয়ার পর ১৩ দিনের মাথায় নিয়ম ভঙ্গের কাজ করতে শ্যামনগর ননা বাবার ঘাটে এসেছিল সে। সেখানেই অন্য চার ভাই বোনের সঙ্গে গঙ্গায় স্নান করতে নেমেছিল দীপ।

হঠাৎই জলের স্রোতে চার ভাইবোনই ভেসে যেতে শুরু করে। স্থানীয় বাসিন্দারা এই দৃশ্য দেখে দ্রুত গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়ে বাকি ২ ভাই ও এক বোনকে উদ্ধার করে পাড়ে নিয়ে আসলেও গঙ্গায় জলের স্রোতে ভেসে যায় ওই ছাত্র। খবর পেয়ে দ্রুতই ঘটনাস্থলে ছুটে আসে জগদ্দল থানার পুলিশ। নিয়ে আসা হয় স্পিড বোট এবং ডুবুরিও।

আরও পড়ুন : মমতাকে চাপে ফেলে মোদীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ এই সাংসদ

তবে বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত দীপের সন্ধান পাওয়া যায়নি। এই ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে পাল পরিবারে। মাত্র ১৩ দিন আগেই ওই পরিবারের বৃদ্ধা বিনা পালের মৃত্যু হয়েছিল। ঠাকুরমার মৃত্যুর ১৩ দিনের মাথায় ফের বিপর্যয় নেমে এল পাল পরিবারে।

দীপ স্কুলে ভালো ছাত্র বলেই পরিচিত ছিল। ঘটনার পর ওই ঘাটে উপস্থিত হন স্থানীয় পুরপিতা সত্যেন রায়। তিনি বলেন, ‘মর্মান্তিক এই ঘটনায় মৃত ওই পরিবারের পাশে রয়েছি। ডুবুরি নিয়ে এসে নিখোঁজ ছাত্রের সন্ধান চলছে।’

নিখোঁজ ওই ছাত্রের বাড়ি শ্যামনগর নেহেরু মার্কেট অঞ্চলে বলে জানা গিয়েছে৷ গোটা ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। জগদ্দল থানার পুলিশ এই ঘটনার তদন্তে নেমেছে।