প্রতিকী ছবি।

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: উচ্চমাধ্যমিকের ফল প্রকাশের দিনই স্কুলে পরীক্ষার্থীদের মার্কশিট, সার্টিফিকেট তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা যাবে বলে জানিয়েছে সংসদ।

সংসদ জানিয়েছে, সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং বজায় রেখে ফলপ্রকাশের দিনই ক্যাম্প অফিস থেকে স্কুলগুলি মার্কশিট নিতে পারবে। পরে স্কুলগুলো তাদের পরিস্থিতি অনুযায়ী ছাত্রছাত্রীদের মার্কশিট-সার্টিফিকেট দেবে। ছাত্রছাত্রীদের যাতে কোনও সমস্যা না হয়, সেকথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত সংসদের।

প্রসঙ্গত, সিবিএসই ও আইসিএসই বোর্ডের পথে হেঁটে উচ্চ মাধ্যমিকের বাকি তিনটি পরীক্ষা বাতিল করেছে রাজ্য।

শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানান, উচ্চ মাধ্যমিকের বাকি তিনটি পরীক্ষা হবে না। যে সব বিষয়ের পরীক্ষা হয়ে গিয়েছে, সেগুলির মধ্যে প্রাপ্ত সর্বোচ্চ নম্বরের ভিত্তিতে বাতিল পরীক্ষাগুলির মূল্যায়ন করা হবে। এই ব্যবস্থা পছন্দ না হলে, পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগও থাকবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরীক্ষা নেওয়া হবে।

তবে প্রশ্ন হল, ২৩ মার্চ থেকে ৮ জুন পর্যন্ত সব কিছু বন্ধ থাকার পরেও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ ৭ লক্ষ ৯০ হাজার পরীক্ষার্থীর খাতা দেখা ও নম্বর সংগ্রহের প্রক্রিয়ায় গতি আনল কী ভাবে?

সংসদ সভাপতি মহুয়া দাসের কথায়, “আমরা জেলাশাসক ও রেল কর্তৃপক্ষর সঙ্গে যোগাযোগ করি। লকডাউনের মধ্যে রেলের সঙ্গে বলে আমরা সে সব জায়গা খুলিয়ে খাতা সংগ্রহ করেছি। সংসদের গাড়িতে সেই সব খাতা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে প্রধান পরীক্ষকদের বাড়িতে।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.