ফাইল ছবি

হাওড়া:  পুরভোট হতে চলেছে আগামী এপ্রিলেই। এরই মধ্যে কাটতে চলেছে হাওড়া পুরসভার ৪১৯ জন চুক্তিভিত্তিক কর্মীদের দীর্ঘদিনের সমস্যা। পুরভোটের আগেই পুনর্নিয়োগ হতে চলেছে ৪১৯ জন চুক্তিভিত্তিক ওই কর্মী। বৃহস্পতিবার রাজ্য সরকারের ফিনান্স ডিপার্টমেন্টের তরফ থেকে নিয়োগের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই ব্যাপারে হাওড়া পুরসভার কমিশনার বিজিন কৃষ্ণা বলেন, এদিনই রাজ্যের ফিনান্স ডিপার্টমেন্টের অনুমোদন এসেছে। আগামী এক বছরের জন্য এই তাদের চুক্তি করা হয়েছে। এই মাস থেকেই তাঁরা কাজে যোগ দেবেন।

তিনি আরও জানিয়েছেন, কোনও এজেন্সি মারফত তাঁদের নিয়োগ হবে না। সরাসরি তাঁদের নিয়োগ করা হবে। ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে এই চুক্তি ভিত্তিতে ৪১৯ জনকে নিয়োগ করা হয়েছিল। তারপর থেকে প্রায় এক বছর বেতন পাননি এইসব কর্মীরা। তবে মাইনে না পেলেও কাজ চালিয়ে আসছিলেন তাঁরা। বেতনের জন্য সরকারের কাছে দরবার করেছিলেন। ২০১৯এর ৮ জুলাই রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম হাওড়া পুরসভায় এসে ওই কর্মীদের নির্দিষ্ট সময়ে বেতন দেওয়ার কথা জানান।

তিনি বলেছিলেন যে ৪১৯ জন চুক্তিভিত্তিক কর্মচারীকে নেওয়া হয়েছে তাদের বিভিন্ন দপ্তরে ছড়িয়ে দিয়ে পুরসভার কাজে লাগানো হবে। তবে পুরনো বকেয়া বেতনের জন্য এখনও ধৈর্য ধরতে হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। পুরমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর তাঁরা চার মাস বেতন পান। এরপর তাঁদের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় তাঁদের বেতন পাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা পড়ে যায়।

৩০ ডিসেম্বর আরবান ডেভলপমেন্ট ও মিউনিসিপ্যাল অ্যাফেয়ার্স দপ্তর থেকে হাওড়া পুরসভা এই নির্দেশ পাঠানো হয় যার মেমো নং-৪০৫/১(৪)এমএ/ও/ এলএসজি/এইচ ৩ই-১/২০১৯। এই নির্দেশনামায় বলা হয়, হাওড়া পুরসভার পাবলিক হেলথ সানিটেশন, ভেক্টর বোন ডিসিসেস (ভিবিডি) এবং সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট (এসডবলুএম) দপ্তরে ছ’মাসের চুক্তিতে এজেন্সি মারফত এই কর্মীদের নিয়োগ করা হবে। সেই কর্মীসংখ্যা ৪১৯ এর বেশী হবেনা। ফিক্সড গ্র্যাযন্ট, ১৪ তম ফিন্যান্স গ্রান্ট, ৪র্থ ফাইনান্স কমিশন গ্র্যান্ট এবং ওয়েস্টবেঙ্গল আরবান ডেভলপমেন্ট স্কিম থেকে নিয়োগ হওয়া কর্মীদের পারিশ্রমিক প্রদান করা হবে। এরপরেও যদি কোন ঘাটতি থাকে তাহলে স্টেট আরবান ডেভেলপমেন্ট এজেন্সি মারফত এই ঘাটতি পূরণ করা হবে বলেও সেই নির্দেশে বলা হয়।