হাওড়াঃ  আর মাত্র কিছুক্ষণের অপেক্ষা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাত ধরেই ঐতিহাসিক সূচনা অযোধ্যায় রামমন্দিরের। হবে ভূমিপুজো ও শিলান্যাস। গত কয়েক বছর ধরে এই দিনটির দিকেই তাকিয়ে ছিলেন অসংখ্য রামভক্ত। অবশেষে সেই ঐতিহাসিক দিন।

মন্দিরের ভূমি পুজো উপলক্ষে হাওড়াতেও বিজেপির পক্ষ থেকে ভোররাত থেকেই বিভিন্ন কর্মসূচি নেওয়া হয়। যেহেতু রাজ্যে আজ বুধবার লকডাউন, তাই লকডাউন শুরুর আগেই বিজেপি কর্মীরা পথে নেমে পড়েন। হাওড়ার একাংশজুড়ে দীপোৎসব পালন করেন তারা।

জয় শ্রীরাম ধ্বনি দিয়ে পুজোর অর্ঘ্য সাজিয়ে হাওড়ার রামরাজাতলায় রামের মন্দিরে পুজো দেন। গোটা এলাকার মানুষের জন্যে মিষ্টি বিতরণ করা হয়। ভোররাত থেকেই আতসবাজি পোড়ানো হয়।

বিজেপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় সিং, হাওড়া জেলা সদর সভাপতি সুরজিৎ সাহার নেতৃত্বে রামরাজাতলায় রামের মন্দিরে ভোর চারটে থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত পূজার্চনা হয়।

বিজেপির দাবি, সরকারি নির্দেশ আমরা মেনে চলব। আজ যেহেতু লকডাউন, তাই লকডাউন শুরুর আগে আমরা এই কর্মসূচি পালন করেছি। তবে লকডাউন শুরু হলেও এদিন বহু মানুষ ভিড় জমান হাওড়াতে। সোশ্যাল ডিসটেন্স কার্যত অমান্য করেই চলে কর্মীদের উৎসব পালন।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও