হাওড়া: গাড়ি পার্কিংকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল হাওড়া পুরসভা ও আদালত চত্বর। হাতাহাতিতে থেকে ইটবৃষ্টি কিছুই বাদ গেল না। আইনজীবী ও পুরকর্মীদের সংঘর্ষে আহত হন দু’পক্ষেরি বেশ কয়েকজন। অভিযোগ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাওড়া থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী গেলেও পুলিশকে অগ্রাহ্য করেই চলতে থাকে সংঘর্ষ। শেষে বাধ্য হয়ে লাঠিচার্জ করতে হয় পুলিশকে।

বুধবার সকালেই ঘটনার সূত্রপাত। জানা গিয়েছে, এদিন সকালে হাওড়া পুরসভার বাইরে গাড়ি পার্কিং করছিলেন এক আইনজীবী। অভিযোগ, সেই সময় তাঁকে বাধা দেন পুরসভার এক কর্মী। এই নিয়ে তাঁদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর হঠাৎই আদালতে চড়াও হন পুরসভার বেশ কয়েকজন কর্মী। আদালতের ভিতর ভাঙচুর চালায় তারা। এমনকি আইনজীবীদেরও মারধর করার অভিযোগ ওঠে ওই পুরকর্মীদের বিরুদ্ধে। ঘটনায় আহত হন ৫ আইনজীবী।

এরপরেই পালটা দেয় আইনজীবীরা। দু’পক্ষের সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে হাওড়া পুরসভা ও আদালত চত্বর। পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে ঘটনাস্থলে যায় হাওড়া থানার পুলিশ। নামানো হয় র‍্যাফ। অভিযোগ, র‍্যাফের সামনেও চলতে থাকে হাতাহাতি। শেষে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ।

দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। পুলিশের তৎপরতায় ইতিমধ্যেই তাঁদের উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন আহতরা। পুরকর্মীদের অভিযোগ, হাওড়া আদালত চত্বরে বেআইনিভাবে গাড়ি পার্কিং করতেন আইনজীবীরা। সে জন্যই তাদের বাধা দেওয়া হয়। এতেই তাদের ওপরে চড়াও হন আইনজীবীরা। পুরকর্মীরা তাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তারা।

পুরকর্মীদের অভিযোগ , পার্কিং নিয়ে আইনজীবীদের সঙ্গে তাঁদের বচসা শুরু হতেই বেশ কয়েকজন আইনজীবী পুরসভা লক্ষ্য করে ইট ছুঁড়তে শুরু করেন। ইটের আঘাতে আহত হন বেশ কয়েকজন পুরকর্মী। পুলিশ সূত্রে খবর, বর্তমানে স্বাভাবিক পরিস্থিতি। তবে সামান্য বচসা থেকে এই ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে স্থানীয়দের মধ্যে। রাস্তা অবরোধ করে দেন তাঁরা। বন্ধ হয়ে যায় আদালতের কাজকর্ম। এদিকে আইনজীবীদের দাবি, যেসব পুরকর্মী তাদের মারধর করেছে তাদের গ্রেফতার করতে হবে।এদিকে, গোলমালের মধ্যে পড়ে আহত হয়েছেন সংবাদমাধ্যমের কর্মীরাও।