হাওড়া: শীতের পারদ নামতেই রাজ্য জুড়ে শুরু হয়েছে উৎসব-পার্বনের পরিবেশ। দিকে দিকে এখন খুশির আমেজ। অন্তত নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহটা একটু উৎসবের আমেজেই কাটে বাঙালির। আর এই আমেজকে আরও কিছুটা বাড়িয়ে দিল হাওড়া জেলার খাদি মেলা।

শহরের প্রতিটি মানুষ এখনও সুযোগ পেলেই উপভোগ আরেকবার উপভোগ করতে চায় নতুনের মধ্যে পুরাতনের স্বাদ। তাইতো হাওড়ার ডুমুরজলা স্টেডিয়াম সংলগ্ন মাঠ সেজে উঠেছে নানারকম আলোয়। স্বাগত জানাচ্ছে প্রতিদিন বহু মানুষকে। মেলার সঙ্গে রয়েছে ছুটির দিনগুলোতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

মেলার আয়োজনে পশ্চিমবঙ্গ খাদি ও গ্রামীণ শিল্প পর্ষদ (ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি উদ্যোগ এবং বস্ত্র দফতর,পশ্চিমবঙ্গ সরকার)। খাদি মানে পরম্পরা, খাদি মানে নির্ভরতা— তাই তো খাদি সবার সেরা। নতুনভাবে নতুনরূপে খাদি এখন সব বয়সের মধ্যে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

এই মেলার মূল উদ্দেশ্যই হল রাজ্যের গ্রামীণ শিল্পকলাকে তুলে ধরা। খাদি ও গ্রামীণ শিল্পের প্রসারে আয়োজিত এই মেলায় রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে ক্ষুদ্র, কুটির শিল্পের সঙ্গে যুক্ত শিল্পীরা স্টল দিয়েছেন। সব মিলিয়ে এবার মোট ১১৫টি স্টল বসেছে এই মেলায়। এই মেলায় পাওয়া যাব, সিল্ক, মসলিন, সুতি খাদি, ও রেডিমেড পোশাকের বিপুল সামগ্রী।

মেলার অন্যতম আকর্ষণ কুচবিহারের শীতল পাটি, রায়গঞ্জের তুলাই পাঞ্জি চাল, মালদহের আমসত্ত্ব ও আচার,পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরের পটচিত্র, বীরভূমের কাঁথা স্টিচ, এছাড়াও বাকি জেলাগুলি থেকেও স্টল আছে যেখানে আছে হ্যান্ডমেড জুয়েলারি, নানারকম গিফট আইটেম, শান্তিনিকেতনি লেদার ব্যাগ, উলের পোশাক ও আরও অনেক কিছু। মেলা চলবে ৮ জানুয়ারি থেকে ২১জানুয়ারি পর্যন্ত। এদিন সন্ধ্যায় মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। শুধু তাই নয়, প্রথম দিনেই ক্রেতাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো।