হাওড়া: আর মাত্র কিছুক্ষণের অপেক্ষা৷ বিশ্বকাপ ফাইনালে মুখোমুখি ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া৷ সেই ম্যাচ ঘিরে উত্তেজনার পারদ তুঙ্গে শহর থেকে শহরতলীতে৷

বিশ্বকাপ ফাইনালের উন্মদনায় সেজে উঠেছে হাওড়া স্টেশন সংলগ্ন ফুড প্লাজা৷ হাওড়া স্টেশনের ওল্ড কমপ্লেক্সে বিশ্বকাপ ফাইনাল উপলক্ষ্যে ফুড প্লাজা চত্বরটি ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়ার পতাকা- জার্সিতে সাজিয়ে তোলা হয়েছে৷ সেই সঙ্গে ফাইনাল ম্যাচ উপলক্ষ্যে প্রতি খাবারের কেনাকাটায় থাকছে লাকি ড্র।

খাবার কিনে পেতে পারেন বিশেষ উপহার৷ ভাগ্যে থাকলে জিততে পারেন আস্ত একটা ফুটবল। খাবারে কামড় বসাতে বসাতেই বল পায়ে বিশ্বকাপের আবহে মেতে উঠতে পারেন আপনিও৷ এছাড়াও প্রতি এক হাজার টাকার কেনাকাটায় উপহার হিসেবে থাকছে ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়া দলের জার্সি। ফাইনালিস্ট দুই দলের সেই জার্সি পরেই খেলা দেখার সুযোগ করে দিচ্ছে ফুড প্লাজা কর্তৃপক্ষ।

সঙ্গে এলইডি টিভিতে বিশ্বকাপ ফাইনাল দেখার বন্দোবস্তও থাকছে। হাওড়া স্টেশন সংলগ্ন ফুড প্লাজার এক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, ‘বিশ্বকাপ উৎসবে এক মাস জুড়ে বিভিন্ন ইভেন্টের আয়োজন করা ছিল। ফাইনালের দিন আরও চমক থাকছে৷ ফ্রান্স ও ক্রোয়েশিয়ার ম্যাচ উপলক্ষ্যে দুই দেশের বিশেষ পদ মেনুতে রাখা হয়েছে।’ ফ্রান্সের ফ্রেঞ্চ ফ্রাই যেমন থাকছে তেমনি পুতিনের দেশের রাশিয়ান স্যালাডও পাবেন হাওড়া স্টেশনে আসা যাত্রীরা। মদ্রিচদের দেশ থেকে থাকছে বাহারী ফিসারম্যান স্যুপ। সব মিলিয়ে ফাইনালের আগে উৎসবের আবহ সর্বত্র৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।