হাওড়া: এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (আই এম এ)-র ডাকে শুধু গোটা দেশের হাসপাতালগুলিতে জরুরি পরিষেবা চালু রাখার আহবান জানানো হয়েছে৷ এর সময় সীমা সোমবার ভোর ছয়টা থেকে মঙ্গলবার ভোর ছয়টা পর্যন্ত৷ জরুরি পরিষেবার বাইরে যাবতীয় কাজ বন্ধ করার কথা বলা হয়েছে৷

বহির্বিভাগে রোগী দেখাও বন্ধ রয়েছে বিভিন্ন হাসপাতালে। রাজ্য শাখাগুলিতে এই মর্মে নির্দেশ পাঠিয়েছে আইএমএ। তারা জানিয়েছে জরুরি এবং ক্যাজুয়ালটি বিভাগে কাজ চলবে।

আরও পড়ুন- রামকৃষ্ণপুর ঘাটে উদ্ধার যাদুকরের দেহ উদ্ধার, অনুমান পুলিশের

চিকিৎসকদের একাংশের দাবি করেছেন, তারা কালো ব্যাজ পরে জরুরি বিভাগে রোগী দেখবেন। চিকিৎসক ও চিকিৎসা কর্মীদের হেনস্থা রুখতে সুসংহত কেন্দ্রীয় আইন চাইছে ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন।

এখনও পর্যন্ত হাওড়া জেলা হাসপাতালে পরিষেবা স্বাভাবিক রয়েছে বলে দাবি করেছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। চিকিৎসকেরা আউটডোরে রুমের বাইরে বসে চিকিৎসা করেছেন। তা সত্বেও অনেক রোগী এদিন চিকিৎসকের অভাবে ফিরে গিয়েছেন এমন অভিযোগও উঠেছে।

আরও পড়ুন- ‘অভিষেক আর সিন্ডিকেটের জন্য তৃণমূল ছেড়েছি’, বিস্ফোরক সুনীল সিং

রোগীর আত্মীয় মহম্মদ ইউসুফ বলেন, চিকিৎসক নেই হাসপাতালে। প্রায় দেড় ঘণ্টা অপেক্ষা করছি এখানে। সকলেরই অসুবিধা হচ্ছে। কেন ওনারা আজকে দেশব্যাপী ধর্মঘট করেছেন তা বুঝতে পারছি না? আমাদের তাহলে দেখবে কে? একজন মানুষ ভুল করেছে তার জন্য সকলে ভুগবে কেন? রোগীর আত্মীয় বিদ্যুৎ কুমার শেঠ বলেন, ১২টা নাগাদ ডাক্তার দেখাতে এসেছি। বনধ হলেও এসেছি ডাক্তার দেখাতে। কিন্তু হাসপাতালে কোনও ডাক্তার নেই। অন্য জায়গায় রোগীকে ভরতি করাতে যাচ্ছি।