স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: আইনজীবী এবং পুরকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে বুধবার রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে হাওড়া কোর্ট চত্বর৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে লাঠি চার্জ, কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটাতে হয়৷ পুলিশের মারে জখম বেশ কয়েকজন আইনজীবী৷ প্রতিবাদে আজ থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতী শুরু করলেন হাওড়া আদালতের আইনজীবীরা৷

আরও পড়ুন: ফের বিস্ফোরণ শ্রীলঙ্কায়, শোনা গেল কান ফাটানো আওয়াজ

বুধবার পুলিশের আচরণে অসাম্মানিত আইনজীবীরা৷ তাই শুধু কর্মবিরতী করেই শেষ নয়, পুলিশের বিরুদ্ধে এদিন হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলার আবেদনও করা হবে হাওড়া বার অ্যাসোসিয়েশনের তরফে৷ সঙ্গে বিকেল সাড়ে তিনটে হবে আইনজীবীদের ধিক্কার মিছিল৷

ঘটনার সূত্রপাত বুধবার সকাল সাড়ে দশটা নাগাদ। কর্পোরেশনের নতুন গেটের সামনে এক আইনজীবীর গাড়ি রাখাকে কেন্দ্র করে। অভিযোগ, কর্পোরেশনের অস্থায়ী কর্মীদের কেউ সেই গাড়িতে ভাঙচুর চালায়। এর পর সেই খবর কোর্টে পৌঁছলে ধুন্ধুমার বেঁধে যায়৷ উকিলরা ঢুকে পড়েন কর্পোরেশনের মধ্যে। পুরকর্মীদের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায় আইনজীবীদের। রক্তাক্ত হন বেশ কয়েক জন আইনজীবী।

আরও পড়ুন: আসানসোলে বিজেপি নেতার উপর হামলার অভিযোগ

কর্পোরেশনের ভিতর আটকে পড়েন কয়েক হাজার কর্মী। পুর দফতরে কাজে আসা মানিুষরাও বিপদে পড়েন৷ কর্পোরেশনের দুটি গেটই আটকে দেন আইনজীবীরা। বুধবার সকাল থেকে সন্ধ্যা, প্রায় ছ’ঘন্টা ধরে চলে এই পরিস্থিতি৷। রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ রায়ও আসেন জটিল অবস্থা সামলাতে৷ কিন্তু অনড় আইনজীবীরা ঘিরে থাকেন হাওড়া কর্পোরেশন দফতর। দফায় দফায় চলে ইটবৃষ্টি।

এক সময় আইনজীবী এবং পুরকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষে ব্যাপক আকার ধারণ করে৷ দফায় দফায় চলে ইঁট বৃষ্টি৷ পরে হাওড়া কমিশনারেটের বিশাল পুলিশ আসে৷ নামানো হয় ব়্যাফ৷ পরিস্থিতি বাগে আনতে লাঠি চার্জ করে তারা৷ ফাটানো হয় কাঁদানে গ্যাসের সেল৷

আরও পড়ুন: কবরের জন্য তিন হাত জমি চাইলে বন্দেমাতরম বলতে হবে: গিরিরাজ সিং

হাওড়া কোর্টের আইনজীবীদের বক্তব্য, পুলিশে সঠিক বিচার না করে নির্বিচারে লাঠি চালিয়েছে৷ তাদের ভূমিকা পক্ষপাতদুষ্ট৷ জরুরী অবস্থার সময়ও এই কাজ হয়নি বলে দাবি তাদের৷ প্রতিবাদে আইনজীবীরা একজোট হয়ে এদিন জনস্বার্থ মামলার আবেদন করবেন হাইকোর্টে৷