স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের জেরে ভুবনেশ্বরের হোটেলে আত্মঘাতী হল এক প্রেমিক যুগল৷ মৃতদের নাম টুম্পা পাকিরা (৩৭)ও শুভঙ্কর মাঝি (২৬)৷ দুজনই হাওড়ার শ্যামপুরের বাসিন্দা৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, টুম্পার সঙ্গে বছর কুড়ি আগে বিয়ে হয়েছিল শ্যামপুর থানার খাড়ুবেড়িয়ার উত্তম পাকিরার৷ তাদের ছেলে এবছর মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছে এবং মেয়ে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী৷

উত্তম পেশায় সোনার কারিগর৷ কর্মসূত্রে সে সস্ত্রীক অন্ধ্রপ্রদেশে থাকত৷ বছরে একবার তারা গ্রামের বাড়িতে আসত৷ বাড়িতে থাকাকালীন উত্তমরা বঙ্কি গ্রামের বাসিন্দা শুভঙ্কর মাঝির গাড়ি ব্যবহার করত৷ সেই সুবাদেই টুম্পার সঙ্গে শুভঙ্করের ঘনিষ্ঠতা হয়৷

এবার ভোট দিতে উত্তম দেশের বাড়ি খাড়ুবেড়িয়ায় আসে৷ দিন চারেক আগে টুম্পা শুভঙ্করের সঙ্গে ঘর ছাড়ে৷ শুক্রবার সকালে তাদের ভুবনেশ্বরে একটি হোটেলের ঘরে একই সিলিং ফ্যানে একটি শাড়ির দুই প্রান্তে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ভুবনেশ্বরের পুলিশ৷

শ্যামপুর থানায় খবর দেয় ভুবনেশ্বরের পুলিশ৷ খবর দেওয়া হয় টুম্পার স্বামী উত্তম পাকিরাকে৷ মৃতদেহ ময়নাতদন্তের পর টুম্পার মৃতদেহ হাওড়ায় পাঠানো হবে৷ ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ৷