হাওড়া:  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ মতো আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ। এরপরই বৃহস্পতিবার ২৫ জুন থেকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত এলাকাগুলি সিল করে দিয়েছিল পুলিশ। হাওড়ায় কমিশনারেট এলাকায় ২৭টি কন্টেনমেন্ট জোনকে কড়া পুলিশি পাহারায় ঘিরে দেওয়া হয়।

২৭টি কন্টেনমেন্ট জোন বিশেষভাবে চিহ্নিত করে ফের সম্পূর্ণ লকডাউন

ওই সমস্ত এলাকার বাসিন্দাদের এলাকার বাইরে বের হওয়া বা বাইরে থেকে কারও এলাকায় প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হয়। এবার হাওড়া শহরের কণ্টেনমেণ্ট এলাকাগুলিতে লকডাউন ঠিকঠাক কার্যকর হচ্ছে কিনা শনিবার তা সরোজমিন করেন হাওড়ার পুলিশ কমিশনার কুণাল আগরওয়াল। হাওড়া কমিশনারেটের ২৭টি এলাকায় ফের কঠোরভাবে লকডাউন চালু করা হয়েছে।

পড়ুন আরও- বাতাসে কীভাবে বাড়ল ‘রেডিওঅ্যাকটিভিটি’র মাত্রা, ছড়াচ্ছে আতঙ্ক

পুরো এলাকা সিল করে দেওয়া হয়েছে। ওইসব এলাকায় করোনার সংক্রমণ কমাতেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। শনিবার এমনই কয়েকটি এলাকা ঘুরে দেখেন পুলিশ কমিশনার। প্রথমে তিনি বেলুড়ের রাজেন শেঠ লেনে যান। সেখানকার পরিস্থিতি ঘুরে দেখেন। ওই এলাকাটিকেও পুরোপুরি সিল করে দেওয়া হয়েছে।

সেখানে লকডাউন ঠিকঠাক চলছে কিনা তা ঘুরে দেখেন পুলিশ কমিশনার। সেইসঙ্গে বেলুড়ের একটি শপিং মলে গিয়ে নিরাপত্তা বিধি যথাযথ মানা হচ্ছে কিনা তাও ঘুরে দেখেন। বালি, বেলুড়, মালিপাঁচঘড়ার লকডাউন এলাকাগুলি ঘুরে দেখেন তিনি।

প্রসঙ্গত, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ মতো ৩১ জুলাই পর্যন্ত বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ। এরপরই বৃহস্পতিবার কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত এলাকাগুলি সিল করে দেওয়া শুরু করল পুলিশ। হাওড়ায় কমিশনারেট এলাকায় ২৭টি কন্টেনমেন্ট জোনকে কড়া পুলিশি পাহারায় ঘিরে দেওয়া হয়েছে।

ওই সমস্ত এলাকার বাসিন্দাদের এলাকার বাইরে বের হওয়া বা বাইরে থেকে কারও এলাকায় প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই আদেশ বলবৎ থাকবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। জানা গিয়েছে, শহরে মোট কন্টেনমেন্ট জোন ৮৪টি। তার মধ্যে ২৭টিকে আলাদাভাবে চিহ্নিত করে যাতায়াতের রাস্তায় ব্যারিকেড লাগানো হয়েছে।

ওইসব এলাকার দোকান, বাজার সব বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাস্তার ধারে বোর্ড লাগিয়ে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বিধিনিষেধ মেনে চলতে বলা হয়েছে। আবার শুরু হয়েছে পুলিশি টহল। পুলিশের এই তৎপরতায় সংক্রমণ কমবে বলেও মনে করছেন অনেকে। প্রায় ২৭টি এলাকায় আবার পুরোদমে লকডাউনের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

এইসব এলাকায় পর্যাপ্ত কারণ ছাড়া ঢোকা বা বেরনো যাবে না।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও