হাওড়া: পুরসভা অভিযান কর্মসূচি নিয়ে বিজেপির বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে ধুন্ধুমার কাণ্ড বেধে গেল হাওড়ায়৷ চলল পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি। বিজেপি কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে ব্যবহার করা হয় জল কামান।

হাওড়ার পুর এলাকার নাগরিকরা সঠিক পরিষেবা পাচ্ছেন না এই অভিযোগ তুলে এবং অবিলম্বে পুরভোটের দাবিতে হাওড়া পুরসভায় বিক্ষোভ দেখায় জেলা বিজেপি যুব মোর্চা।

আরও পড়ুন- IMA-র ডাকে চিকিৎসা বন্ধের ছায়া হাওড়া জেলা হাসপাতালে

এদিন ফ্লাইওভার চত্বরে সভার পর দলের কর্মীরা হাওড়া পুরসভা অভিযান করে। তারা মিছিল করে পুরসভার গেটের দিকে আসার চেষ্টা করলে হাওড়া সিটি পুলিশের বিশাল বাহিনী তাদের বাধা দেয়। তখনই পুলিশের সঙ্গে বিজেপি কর্মীদের রীতিমত ধ্বস্তাধস্তি বেধে যায়। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে শেষ পর্যন্ত জল কামান ব্যবহার করে পুলিশ।

এদিন বিজেপির বিক্ষোভ কর্মসূচীর জন্য সকাল থেকেই পুলিশ পুরনিগম চত্বরে ব্যারিকেড করে রাখে। হাওড়া সিটি পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা সহ বিশাল বাহিনী আসে সেখানে। নামান হয় র‍্যাফ ও রোবোকপ। কোনোরকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে আনা হয়েছিল জলকামান। এদিন বিজেপি কর্মীরা পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে পুরসভার গেট টপকে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করে৷ পুলিশ এসে তাদের সরিয়ে দেয়।

আরও পড়ুন- রামকৃষ্ণপুর ঘাটে উদ্ধার যাদুকরের দেহ উদ্ধার, অনুমান পুলিশের

কর্মসূচি সম্পর্কে বিজেপির হাওড়া জেলা সদরের সভাপতি সুরজিৎ সাহা বলেন, ডিসেম্বর থেকে হাওড়া পুরনিগমে প্রশাসক বসানো হয়েছে। কিন্তু তারপরেও নিকাশি, রাস্তাঘাট সংস্কার প্রভৃতি কিছুই হয়নি। এই নিয়ে তারা ডেপুটেশনও দিয়েছেন। সেই কারণে এদিন তাঁরা পুলিশকে জানিয়ে পুরসভা দখলদারি অভিযান কর্মসূচী শুরু করেছিলে।

বিক্ষোভ সরাতে পুলিশ জল কামান চালায়। তাঁর দাবি, শান্তিপূর্ণভাবেই পুরসভার গেটের সামনে বিক্ষোভ দেখানো সত্বেও তাঁদের উপর লাঠিচার্জ চালায়। এই ঘটনায় বেশ কিছু মহিলা কর্মী আহত হন। পুলিশ জোর করে তাঁদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয়।