হাউস্টন: নজর এড়ায় না তাঁর৷ বিমানবন্দরে তাঁকে দেওয়া অভ্যর্থনার ফুলও কুড়িয়ে নেন তিনি৷ সৌজন্যের নয়া নজির গড়তে ভালবাসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ সেই সৌজন্যের ফের পরিচয় দিয়ে হাউডি মোদীর মতো মঞ্চ থেকে ক্ষমা চাইলেন মোদী৷

ঠিকই শুনেছেন৷ হাউডি মোদীর মঞ্চ থেকে সবার সামনে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন মোদী৷ এদিন তিনি ক্ষমা চেয়েছেন মার্কিন সেনেটর জন কর্নানের স্ত্রীর কাছে৷ প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে এই ইস্যুতে একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়েছে৷ ভিডিওতে দেখা গিয়েছে মোদী ওই সেনেটরের স্ত্রীর কাছে ক্ষমা চাইছেন৷

ঘটনাটি বেশ ভাইরাল হয়ে যায়৷ কিন্তু কেন আচমকা ক্ষমা চাইলেন মোদী? ওই মার্কিন সেনেটরে স্ত্রীর জন্মদিনের দিনই হাউডি মোদীর মত মেগা শোয়ের আয়োজন করা হয়৷ খুব স্বাভাবিকভাবেই স্ত্রীর ৬০তম জন্মদিনে উপস্থিত থাকতে পারেননি মার্কিন সেনেটর জন কর্নান৷ তাঁর জন্যই এই দম্পতি নিজেদের মত করে সময় কাটাতে পারলেন না বলে দু:খপ্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী৷

নিজের বক্তব্যের মাঝেই সরাসরি ওই সেনেটরের স্ত্রী স্যাণ্ডিকে সম্বোধন করেন মোদী৷ জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানান ও ক্ষমা চেয়ে নেন যে তাঁর অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্যই সেনেটর স্ত্রীর জন্মদিনে থাকতে পারছেন না৷

মোদীর এই ক্ষমা প্রার্থনা শুনে কার্যত হেসে ফেলেন ৬৭ বছর বয়েসী মার্কিন সেনেটর জন কর্নান৷ মোদীর ক্ষমা চেয়ে বলেন আপনি আমাকে আজকের দিনের জন্য হিংসা করবেন, কারণ আপনার জন্মদিনে আপনার স্বামী আমার পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছেন৷ উল্লেখ্য, এই দম্পতি ৪০ বছরের বিবাহিত জীবন ও তাঁদের দুই কন্যা সন্তান রয়েছে৷

রবিবার হাউস্টনে উষ্ণ অভ্য়র্থনায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁর সঙ্গে ভারত কতটা ওতপ্রোতভাবে যুক্ত রয়েছে, ৫০,০০০ প্রবাসী ভারতীয়ের সামনে তা ব্যাখা করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ”আমরা ভারতীয়রা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে বিশেষভাবে যুক্ত। প্রার্থী হিসেবে প্রেসিডেন্টের ‘আব কি বার ট্রাম্প সরকার’ কথাটা স্পষ্টভাবেই সামনে এসেছিল।’ এছাড়া হোয়াইট হাউস কীভাবে দিওয়ালি উদযাপন করেছে, সেকথাও উল্লেখ করেন মোদী।