ভ্যাকসিন এসে গেলেও এখনো করোনা পিছু ছাড়েনি এই দেশের। দিনে দিনে বাড়ছে সংক্রমিতের সংখ্যা। পরিস্থিতি সামাল দিতে ইতিমধ্যেই দেশের বেশ কিছু জায়গায় আবার শুরু লক ডাউন। ঠিক যেন ২০২০ সাল ফিরে আসছে আমাদের দুঃস্বপ্নে।

সামাজিক দূরত্ব, মাস্ক, স্যানিটাইজারের আবদ্ধে মানুষ একেবারে নিজেকে গুটিয়ে ফেলেছে আবার। কিন্তু আনন্দের রেশ তো সহজেই কাটে না। বাংলায় এখনো লক ডাউন ঘোষিত হয়নি। তবে হলেও তার মধ্যে যদি আপনার প্রিয়জনের বা কাছের কারুর বাড়ি কোনো অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ আসে বা আপনারা কয়েকজন মিলে তার কোনো বিশেষ দিনকে রঙিন করে তোলার কথা ভাবেন তাহলে কীভাবে করবেন সেটা? লক ডাউন মানেই তো দোকান বন্ধ থাকবে। কিছু কিনতে হলেও কেনা সমস্যার। তবে যদি বলি পার্টি কীভাবে করবেন সেই প্ল্যান দিতে পারি আমরা তাহলে? পড়ে নিন পুরোটা।

১. পার্টির একটা থিম ঠিক করে বাড়িতেই সেই পরিবেশ ফুটিয়ে তুলুন। নেহাত পোশাকে ভাবনা আনতে পারেন বা পোশাকটির রঙ মিলিয়ে পরতে পারেন সবাই। একঘেয়েমি কেটে গিয়ে জমজমাট পরিবেশ তৈরি করা যাবে।

২. যদি শুধুই দু’জন মিলে দিনটি উদযাপন করতে চান তাহলে মুভি ডেট বা ক্যান্ডেল লাইট ডিনারের বিকল্প আর কিছু নেই। বাড়িতে বানিয়ে নিন কাবাব বা তন্দুরি। সঙ্গে হালকা সংগীতের আমেজ আর সঙ্গীর সঙ্গে মনের কথার বর্ষণ।

আরো পোস্ট- বুধের ভাগ্যফল, ফার্স্ট ক্লিকেই পড়ুন

৩. নেট ঘেঁটে বানিয়ে ফেলুন এমন কিছু সহজ রেসিপি যা কিনতে বাইরে যেতে হবে না বা বাড়ির জিনিস দিয়েই বানানো যাবে নিমেষেই। প্রফেশনাল না হলেও তাতে আপনার ভালোবাসার যে ছাপ থাকবে তাতেই খুশি হবে সে।

৪. আজকাল মনের মতো উপহার নিজের হাতেই বানানো যায়। নানা সোশ্যাল মিডিয়া দেখে সেটাও বানাতে পারেন একেবারে প্রফেশনাল টাচ দিয়েই। অন্তত একটা কার্ড হাতে তৈরি করে দিলেও সে খুশিতে নাচবে।

৫. বেলুন, মোমবাতি- হাতের কাছে যা পাওয়া যায় সেগুলি দিয়েই ডেকোরেশন করে ফেলুন। একেবারে পরিষ্কার সাজানো-গোছানোই দেখতে ভালো লাগে। চেনা চার দেওয়ালের মধ্যেই একটা নতুনত্বের আমেজ আসবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.