দেশ জুড়ে এখন উৎসবের মরশুম। দীপাবলিতে আলোয় সেজে উঠেছে গোটা দেশ। আর তারপরই শুরু গোবর্ধন পূজা। হিন্দু পুরাণ অনুযায়ী, দীপাবলির পরের দিন গিরি গোবর্ধন তাঁর আঙুলের ডগায় তুলেছিলেন শ্রীকৃষ্ণ। সেই উপলক্ষেই এদিন হয় গোবর্ধন পুজো।

মূলত, মথুরা ও বৃন্দাবন-সহ দেশের বিভিন্ন অংশে দীপাবলির সঙ্গেই পালিত হয় গোবর্ধন পুজো।

ভালো বৃষ্টি হয় যাত ভালো ফলন হয়, তার জন্য দেবরাজ ইন্দ্রের পুজো করতেন বৃন্দাবনবাসী। তা দেখে শ্রীকৃষ্ণ বলেন, সেই খাবার ইন্দ্রকে না দিয়ে ছোট ছেলেমেয়েদের খাওয়াতে বলেন। কৃষ্ণের কথায় বৃন্দাবনবাসী ইন্দ্রের পুজো বন্ধ করে দিলে তিনি রেগে গিয়ে বৃন্দাবন প্রবল বৃষ্টি শুরু করেন।

বৃষ্টিতে গোটা বৃন্দাবন ভেসে যেতে বসলে শ্রীকৃষ্ণ এই বিপদ থেকে তাঁদের বাঁচাতে এগিয়ে আসেন। বৃন্দাবনের গোবর্ধন পাহাড় নিজের আঙুলের ডগায় অনায়াসে তুলে ফেলেন শ্রীকৃষ্ণ।

বিকেল ৩:৩৬ থেকে বিকেল ৫:৫১ পর্যন্ত গোবর্ধন পূজা:

সময়কাল: ২ ঘন্টা ১৪ মিনিট

সোমবারের দ্যূত ক্রীড়া: ২৮ অক্টোবর, ২০১৯
প্রতিপাদ তিথি শুরু হচ্ছে: ২৮ অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৯:০৮ মিনিট
প্রতিপাদ তিথি শেষ হচ্ছে: ২৯ অক্টোবর, ২০১৯ সকাল ৬:১৩ মিনিট