নয়াদিল্লি: সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিং নির্ভয়ার মা’কে অনুরোধ করেছিলেন ধর্ষকদের ক্ষমা করে দেওয়ার জন্য, এই কথা শুনে রাগে আইনজীবীকে ধারালো উত্তর ফিরিয়ে দিল নির্ভয়ার মা আশা দেবী।

শনিবার আশা দেবী জানিয়েছেন, “ওনার মতন মানুষদের জন্যই ধর্ষণের শিকার হয়েও ন্যায় পান না। ইন্দিরা জয়সিং কে যে উনি আমাকে এমন সাজেশন দিচ্ছেন। গোটা দেশ দোষীদের শাস্তি দিতে চাইছে। এইরকম আইনজীবীদের জন্যই ন্যায় পায় না। মানবিক ক্ষেত্রকে ইস্যু করে উনি তাকা রোজগার করছেন। আমার ওনার সাজেশন প্রয়োজন নেই”।

আইনজীবী জয়সিংয়ের উদ্ধত্য’কে প্রশ্ন করে তিনি বলেছেন, “আমি বিশ্বাসই করতে পারছি না যে সুপ্রিম কোর্টের উচ্চপদস্থ আইনজীবী হয়ে এমন প্রস্তাব দিতে পারেন তাতেই আমি হতবাক হয়েছি”।

আশা দেবী আরও জানান, “আমি অনেকবছর থেকে ওনাকে দেখছি সুপ্রিম কোর্টে। কখনও আমার ভালো থাকার কথা বলেছেন এখন আবার দোষীদের হয়ে কথা বলছেন। এরা নিজেরা ধর্ষকদের সমর্থন জানিয়ে জীবন কাটাচ্ছেন এটাই ধর্ষণের ঘটনা কখনই থামে না”।

আশা দেবীকে সোনিয়া গান্ধীর উদাহরণ অনুসরণ করার পরামর্শ দিয়ে শুক্রবার রাতে তিনি ট্যুইটারে লিখেছেন, “আমি আপনার দুঃখ সম্পূর্ণ বুঝতে পারছি আশা দেবী। আমি অনুরোধ করছি যে সোনিয়া গান্ধী যেমন নলিনীকে ক্ষমা করে দিয়েছিলেন এবং তাঁকে মৃত্যুদণ্ড থেকে বাঁচিয়েছিলেন ঠিক তেমন কিছুই হোক। আমি আপনার দুঃখের সহমর্মী তবে মৃত্যুদণ্ডের বিরোধী”। ১৯৯১ সালে রাজীব গান্ধীর হত্যার জন্য নলিনীকে গ্রেফতার করা হয় এবং দোষী প্রমাণিত করা হয়।

১৭ জানুয়ারি অর্থাৎ শুক্রবার নির্ভয়া গণধর্ষণকাণ্ডে দোষীদের ফাঁসির দিন ২২ জানুয়ারি থেকে বদলে দাঁড়িয়েছে ১ ফেব্রুয়ারি। এই ঘোষণার পর ক্ষোভপ্রকাশ করে নির্ভয়ার মা বলেছেন ‘ভারতীয় বিচারব্যবস্থা দোষীদের বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে, তাই তাঁদের প্রথমে রাখছে’।

চার দোষীর ফাঁসির নতুন তারিখ ঘোষণার পর আশা দেবী জানিয়েছেন, “দোষীরা যা চেয়েছিলেন তাই হয়েছে। তারিখের পর তারিখ দেওয়া হচ্ছে অপরাধীদের শাস্তির জন্য। আমাদের সিস্টেমটাই এমন যে দোষীদের কথা বেশী শোনা হয়”।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।