নূপুর বা পায়েল ভারতীয় মহিলাদের সাজের একটা অঙ্গ। গয়না হিসেবে নূপুরের প্রচলন বহুদিনের। আগে অনেক ভারি নুপুর পরতেন মহিলারা। এখন সেই ট্র্যাডিশন কমে এলেও, অনেকেই হালকা অ্যাংকলেন্ট পরতে পছন্দ করেন। সোনা, রুপোর পাশাপাশি আধুনিক হালকা ইমিটেশনের নূপুরও পরে থাকেন মহিলারা। তবে নেহাত সৌন্দর্য বৃদ্ধিই নয়, নূপুরের আরও অনেক উপকারিতা রয়েছে।

সাধারণত প্রাচীনকাল থেকে যেসব গয়না পরার প্রচলন হয়েছে, সেগুলোর সবকটারই কোনও না কোনও গুন রয়েছে। নূপুরও তার ব্যতিক্রম নয়। পায়ে এই গয়না পরলে আসলে শরীর ও স্বাস্থ্যের অনেক উপকার হয়।

দেখা যায়, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মহিলাদের মধ্যে রুপোর নূপুর পরার চল রয়েছে। আর এটা খুবই উপকারী। কারণ, রুপো নেগেটিভ এনার্জি দূরে সরিয়ে রেখেছে। যদি সম্পূর্ণ রুপো দিয়ে নূপুর বা পায়েল তৈরি হয়, তাহলে তা পায়ের ব্যথা সারাতে পারে।

শুধু পায়ের ব্যাথাই নয়, পিঠের ব্যথাও কমে এই গয়না পরে থাকলে। পায়ে দুর্বলতা অনুভব করার মত সমস্যা থাকলেও উপকার পাওয়া যায়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.