ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার,দিঘা: সৈকত নগরী দিঘার বালিয়াড়ি মধ্য থেকে এক গৃহবধূর মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে সৈকত শহরে।

এটি খুন নাকি আত্মহত্যা তা নিয়ে শুরু হয়েছে এলাকায় চাপানউতোর । মঙ্গলবার বিকালে পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে আসে। পুলিশ জানিয়েছেন, মৃতের নাম সাকিনা বিবি (৩৪)। তিনি নদিয়া জেলার শান্তিপুরের বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নদিয়া জেলার বাসিন্দা হলেও গত কয়েক বছর ধরে সেক সাব্বির পরিবার সহ দিঘাতেই রয়েছেন। স্থানীয় হোগলা পাতার ছাউনি দেওয়া ঘরে দুই সন্তানকে নিয়ে থাকত ওই দম্পত্তি।

মঙ্গলবার সকাল থেকে আচমকা বাড়ি থেকে কোনও হদিশ পাওয়া যায়নি ওই গৃহবধূর। এরপর দিঘা থানা বিষয়টি জানতে পারেন। এদিন বিকালেই দিঘার বালিয়াড়িতে শরীরের কিছুটা অংশ পোঁতা রয়েছে দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। তাঁরাই খবর দেন পুলিশে।

পুলিশ গিয়ে বালিয়াড়ি থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। বুধবার মৃতদেহটি কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হবে বলে জানা গিয়েছে।

পাশাপাশি ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে গোটা ঘটনার তদন্ত করা হবে। মৃত গৃহবধূর দুই সন্তানকে শিশু কল্যান সমিতিতে পাঠানো হয়েছে।এই ঘটনায় মৃত গৃহবধূর স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এদিকে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে ধৃত স্বামী জানায়, সে স্ত্রীকে গলা টিপে খুন করেছে। প্রমাণ লোপাটের জন্য দিঘার বালিস্তুপে পুঁতে দেয়। যদিওগোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প