স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: গরম কমার কোনও লক্ষণ নেই। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। বুধবার সকালেও পারদ বিশেষ পরিবর্তন হল না। দিনের শুরুতেই সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রী বেশি।

সোমবার থেকে অস্বস্তিকর হতে শুরু করেছে শহরের তাপমাত্রা। মঙ্গলবারের পর বুধবারেও তা আরও অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে। বুধবার সকালে পারদ শুরুই হল ৩৭.২ থেকে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রাও বাড়ছে।এদিনের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে যা দুই ডিগ্রি বেশী। আর্দ্রতা সর্বোচ্চ ৯১ সর্বনিম্ন ৪৮ শতাংশ।

সোমবার সকালে শহরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫.৭ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিক । পরে তা বেড়ে ৩৭.৯ গিয়ে ঠেকে। অর্থাৎ সোমবার যেখানে দিন শেষ হয়েছিল মঙ্গলবার সেখান থেকেই দিন শুরু হয়েছে।
সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৭.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম।

আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল সর্বোচ্চ ৯২ সর্বনিম্ন ৫৪ শতাংশ। ফণী রাজ্যের জ্বালীয় বাষ্প কেড়ে নিয়ে গিয়েছে। ফলে যতক্ষন না বেশি গরম থেকে সমপরিমাণ এবং বৃষ্টির জন্য জ্বালীয় বাষ্প তৈরি হচ্ছে ততদিন বৃষ্টির সম্ভাবনা কম। সেই দিন আসতে এখনও দিন দুই তিনেক লাগতে পারে বলে জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। কলকাতার জন্য তা কত দীর্ঘায়িত হয় সেটাই দেখার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।