নয়াদিল্লি: দিল্লির হাসপাতালগুলিতে পর্যাপ্ত সংখ্যায় বেড রয়েছে, সেই কারণেই উপসর্গ নিয়ে আসা ব্যক্তিদের ফেরানো যাবে না। শনিবার হাসপাতালগুলিকে এমনই বার্তা দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। দিল্লির বেশ কয়েকটি হাসপাতাল করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে আসা ব্যক্তিদের ভর্তি নিতে চাইছে না বলে সম্প্রতি অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই এদিন হাসপাতালগুলিকে সতর্ক করে দিয়েছেন কেজরিওয়াল।

গোটা দেশেই লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। রাজধানী দিল্লিতেও বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী শনিবার রাত পর্যন্ত দিল্লিতে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২৬ হাজার ৩৩৪। দিল্লিতে করোনায় এখনও পর্যন্ত ৭০৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় যুদ্ধকালীন তৎপরতায় কাজ করছে দিল্লির সরকার।

তবে দিল্লির একাধিক হাসপাতাল সম্প্রতি করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে আসা ব্যক্তিদের ভর্তি নিতে চাইছে না বলে অভিযোগ ওঠে।

অভিযোগ পেয়েই কড়া অবস্থান নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। হাসপাতালগুলিকে সতর্ক করে দিয়ে তাঁর বার্তা, ‘সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে আসা ব্যক্তিদের ভর্তি নিতে অস্বীকার করছে কিছু হাসপাতাল। কালোবাজির উসকে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। যে দলেরই সমর্থক হোন রেয়াত করা হবে না।’

দিল্লির হাসপাতালগুলিতে করোনা আক্রান্ত রোগীদের জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যায় বেড রয়েছে বলে দাবি মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের। হাসপাতালগুলিতে করোনা রোগীদের জন্য বেড কম রয়েছে বলে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে দাবি কেজরিওয়ালের।

যদিও দিল্লিবাসীর প্রতিও একটি আবেদন রেখেছেন কেজরিওয়াল। সাম্প্রতিক পরিস্থিতির কথা বিচার করে করোনার উপসর্গহীন ব্যক্তিদের শুধুমাত্র নমুনা পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে গিয়ে ভিড় করতে নিষেধ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আতঙ্কের বশবর্তী হয়ে একের পর এক নাগরিক হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা করাতে গেলে স্বাস্থ্য পরিকাঠামো ভেঙে পড়ার আশঙ্কা করছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প