ফাইল ছবি

চণ্ডীগড়: দেশে সম্মানরক্ষার্থে খুনের ঘটনা উতরোত্তর বেড়ে চলায় কপালে ভাঁজ পড়েছে পুলিশ-প্রশাসনের। এবার সম্মান রক্ষার্থে আরও একটি খুনের ঘটনা ঘটল পঞ্জাবে। ১৭ বছরের এক দলিত কিশোরকে জ্যান্ত জ্বালিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তার বৌদির পরিবারের বিরুদ্ধে। যশপ্রীত নামে নাবালককে নৃশংস হত্যা করার অভিযোগে তিনজনের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। অভিযোগের পরেই অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ। ভয়ঙ্কর এই ঘটনার স্তম্ভিত গোটা দেশ।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে মৃতের বাবা সুরাট সিং জানান, প্রতিবেশী গুরপ্রীত সিং-এর পরিবারের ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাঁর সঙ্গে বিয়ে করেন বড় ছেলে কুলবিন্দর সিং। একান্তে বিয়ে করে পঞ্জাবেরই বুধলাদা অঞ্চলে চলে যায় ওই যুগল। সম্প্রতি তাঁদের একটি পুত্রসন্তানের জন্ম হওয়ায় গুরপ্রীতের বাড়ি গিয়ে সুখবরটা দেয় যশপ্রীত। তবে গুরপ্রীতের পরিবার তা মেনে নিতে পারেনি।

পুলিশে দায়ের হওয়া অভিযোগে জানানো হয়েছে, গুরপ্রীতের ভাই যশন, তুতো ভাই গুরজিত্‍‌ সিং ও তাদের এক বন্ধু রাজু যশপ্রীতের হাত বেঁধে মুখে কাপড় চাপা দিয়ে অন্যত্র নিয়ে যায়। এরপর তার গায়ে পেট্রল ঢেলে জ্যান্ত জ্বালিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। শনিবার রাতে বিষয়টি জানতে পারে যশপ্রীতের পরিবার। এলাকারই একটি চালকলের কাছ থেকে উদ্ধার হয় যশপ্রীতের অগ্নিদগ্ধ দেহ।

পঞ্জাব পুলিশের জেলা পুলিশ সুপার আধিকারিক সুরেন্দ্র শর্মা জানান, এই ঘটনায় ইতিমধ্যেই হত্যার মামলা দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত চলছে খুব শীঘ্রই অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হবে। যশপ্রীতের দেহ ময়নাতদন্তের পর তার পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।