কলকাতা: নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে একাধিকবার সরব হয়েছে তৃণমূল ৷দলীয় মঞ্চ থেকে কমিশনের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এবার এই সুর রাজ্য সরকারের গলায়৷ বাহিনীর নিয়ে অভিযোগ জানিয়ে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি পাঠালেন স্বরাষ্ট্রসচিব অত্রি ভট্টাচার্য ৷

রাজ্যে ষষ্ঠ দফা ভোট অতিক্রান্ত ৷ বাকি শুধু আর এক দফা ৷ ১৯ মে অন্তিম দফা ভোটের আগে ফের কেন্দ্রীয় বাহিনীর ভূমিকা নিয়ে সরব রাজ্য সরকার৷ ১২ মে-র ভোটে বেশ কয়েকটি জায়গায় কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি চালানো থেকে ভোটারদের সঙ্গেও কেন্দ্রীয় বাহিনী দুর্ব্যবহার-একাধিক ক্ষোভ ওই চিঠিতে উগরে দিয়েছেন স্বরাষ্ট্র সচিব। ভারতী ঘোষের নিরাপত্তা রক্ষীর অস্ত্র-সহ বুথের ভিতর ঢুকে পড়া এবং হাওড়ার ভোটে বুথের মধ্যে বিদায়ী সাংসদ এবং এ বারের প্রার্থী প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফেলে মারার কথাও উল্লিখিত রয়েছে দেড় পাতার ওই চিঠিতে।

অত্রিবাবু ওই চিঠিতে লিখেছেন, কুইক রেসপন্স টিম সঠিক ভাবে কাজ করতে পারছে না। যেখানে গণ্ডগোল হচ্ছে, সেখানে সময় মতো পৌঁছতে পারছে না। কারণ তাঁদের ওই এলাকা সম্পর্কে সম্যক ধারনাই নেই। স্থানীয় পুলিশ আধিকারিকদের ওই টিমে না রাখলে এই ঘটনা থামানো যাবে না বলেও নবান্নের তরফে চিঠিতে লেখা হয়েছে।

গত কয়েক দিন ধরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে সুর চড়াচ্ছেন। তিনি বলেছেন, “মাঝে মাঝে মনে হচ্ছে আরএসএস-এর লোকগুলোকে ড্রেস পরিয়ে বাহিনীতে ঢুকিয়ে দেয়নি তো!” কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা লাইনে দাঁড়িয়ে বিজেপি-কে ভোট দিতে বলছে বলেও অভিযোগ তৃণমূলনেত্রীর। সোমবার নামখানার জনসভা থেকে বলেছিলেন, “কেন্দ্রীয় বাহিনী যেখানে পারছে গুলি চালাচ্ছে। রাজ্যের অফিসাররা কী করছেন? ভয় পাচ্ছেন নাকি? ভয় পাবেন না। আমরা এখনও মরে যাইনি। মনে রাখবেন আইন-শৃঙ্খলা রাজ্যের ব্যাপার। আমাদের কাজ আমরা করব। কেন্দ্রের কাজ কেন্দ্র করবে।”তাঁর নির্দেশেই যে খোদ নবান্ন এই পদক্ষেপ নিল সেটা একেবারেই স্পষ্ট