কলকাতা:  ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে এবার বাড়ি তৈরি করতে পারবেন ভাড়াটিয়ারাও। প্রয়োজনে বাড়ি তৈরির ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে আর্থিক সহযোগিতাও করা হবে। বস্তি এলাকায় প্রমোটার চক্র ঠেকাতে নজিরবিহীন পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের। জানা গিয়েছে বাংলার বাড়ি প্রকল্পের আওতাভুক্ত হবেন ঠিকা ভাড়াটিয়ারা। এ ব্যাপারে আগেই বিধানসভায় ঠিকা টেন্যান্সি আইন সংশোধন করা হয়েছিল। বৃহস্পতিবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে সেই সংশোধনী অনুমোদন দেওয়া হয়েছে বাংলা এই সংবাদপত্রের প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠক ছিল। বৈঠক শেষে পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম জানান, কলকাতা ও হাওড়া পুরসভায় ঠিকা টেন্যান্সি অ্যাক্টে সংশোধন করে ঠিকা টেন্যান্টদের ‘ঠিকা লিজি’ করা হল। ঠিকা ভাড়াটিয়াদের ‘ঠিকা অ্যাসাইনি’ করা হয়েছে। এর ফলে ভাড়াটিয়ারা এখন থেকে বাড়ি তৈরির ক্ষেত্রে ব্যাংক থেকে খুব সহজে ঋণ নিতে পারবেন। শুধু ঋণ নিয়ে বাড়ি তৈরিই নয়, তাঁরা রাজ্য সরকারের বাংলার বাড়ি প্রকল্পে আবাস নির্মাণের সুবিধাও পাবেন। এর জন্য সরকারের কাছ থেকে ২ লক্ষ ৮৫ হাজার টাকা অনুদান হিসেবে পাবেন বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম।

একই সঙ্গে রাজ্যের মন্ত্রী জানিয়েছেন, বাংলার বাড়ি প্রকল্পে তাঁরা ২৮৫ বর্গফুটের বাড়ি তৈরি করতে পারবেন। ফলে কলকাতা ও হাওড়ায় ঠিকা টেন্যান্সি অ্যাক্টের আওতায় থাকা দীর্ঘদিনের বহু পুরনো বাসিন্দারা উপকৃত হবেন। বস্তি এলাকার উন্নয়নের জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ঠিকা টেন্যান্সি অ্যাক্টে ওই সুবিধা পেতেন না ভাড়াটিয়ারা। এবার তার সংশোধনী এনে নতুন রুলস ফ্রেম করা হল।

তবে এই বিষয়ে বাড়ি তৈরির করার সুবিধা দেওয়া হলেও কোনওভাবেই প্রমোটারি করার কোনও অনুমোদন সরকার দেবে না বলেই সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়েছে। শুধু তাই নয়, নিজের মতো বাড়িও তৈরি করা যাবে না বলে বলা হয়েছে। হাওড়া এবং কলকাতা পুরসভার যে বিল্ডিং রুলস রয়েছে তা মেনেই দেওয়া হবে বলা হয়েছে। (তথ্য সূত্র-বাংলা এক সংবাদমাধ্যম)

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা