শ্রীনগর: পুলওয়ামা সন্ত্রাসবাদী হামলার মতো একই ছকে শনিবার জন্মু ও কাশ্মারের মাঝামাঝি বানিহালে একটি স্যান্ট্রো গাড়িতে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল জঙ্গিরা৷ এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক হিজবুল জঙ্গীকে গ্রেফতার করল কাশ্মীরী পুলিশ৷ ধৃতের নাম ওয়েস মালিক৷

আরও পড়ুন- পথ ভোলা ভিন রাজ্যের বৃদ্ধাকে ঘরে ফেরাচ্ছেন তৃণমূল প্রার্থী

পুলওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় শহিদ হয়েছিলেন ৪০ জওয়ান৷ গোটা দেশ জ্বলে উঠেছিল প্রতিশোধের আগুনে৷ পাক অধিকৃত বালাকোটে এয়ারস্ট্রাইক করে জঙ্গি ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেয় ভারতীয় বায়ুসেনা৷ তার রেশ এখনও কাটেনি৷ এরইমধ্যে ফের সেনা ঘাঁটি লক্ষ্য করে শনিবারই গ্রেনেড ছোঁড়ে জঙ্গিরা৷ পাশাপশি বানিহালে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে সিআরপিএফের গাড়ির কাছে৷

শনিবার জম্মু ও শ্রীনগরের মাঝে হাইওয়েতে হয় ওই বিস্ফোরণ ঘটায় জঙ্গিরা৷ জানা যায়, একটি স্যান্ট্রো গাড়িতে বিস্ফোরণটি হয়। কাছেই ছিল একটি সিআরপিএফের বাস৷ তাতেও আঘাত লেগেছে বলে জানা গিয়েছে৷ বিস্ফোরণে সম্পূর্ণ বিপর্যস্ত হয়ে যায় স্যান্ট্রো গাড়িটি৷

কাশ্মীরের রামবানের বানিহালের কাছে ঘটে এই বিস্ফোরণ৷ এরপরই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের খোঁজে তল্লাশি চালায় পুলিশ৷ এরপরই একটি রাস্তার পাশ থেকে ওয়াসিন-কে জন্মু ও কাশ্মীর পুলিশ গ্রেফতার করে৷

ওয়াসিন মালিক শ্রীনগরের ইকবাল কলেজের বিবিএর ছাত্র৷ গত বছর সে জইশ-ই-মহম্মদ যোগ দিয়েছিল৷ পরে সেখান থেকে সরে কাশ্মীরী ইসলামি সন্ত্রাসবাদী সংগঠন হিজবুল মুজাহিদিনে যোগ দেয়৷

পুলিশ জানিয়েছে, দু’টি গ্যাস সিলিন্ডার, একটি ডিটোনেটোর, এক বড় বোলত প্যাট্রোল, জিলেটিন স্টিক, ইউরিয়া এবং সালফার উদ্ধার হয়েছে ওয়াসিনের কাছ থেকে৷ ওয়াসিনের কাছ থেকে পাওয়া একটি ডাইরির নোটে তার বিস্ফোরমের পরিকল্পনা সম্পর্কে জানা গিয়েছে বলেও পুলিশ সূত্রে খবর৷ নোটটি থেকে জানা গিয়েছে পুলওয়ামার থেকেও বড় বিস্ফোরণ ঘটাতে চেয়েচিল ওয়াসিন৷