মুম্বই: সারা দেশ জুড়ে এনআরসি ও সিএএ-র বিরোধিতায় সরব হয়েছে মানুষ। এই আন্দোলনে পড়ুয়া ও সাধারণ মানুষের পাশাপাশি যোগ দিয়েছেন বলিউডের বিভিন্ন তারকাও যোগ দিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে অন্যতম পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ।

অনুরাগ বরাবরই স্পষ্টভাষী। সরাসরি তিনি এই সিএএ ও এনআরসির বিরোধিতা করছেন। এবারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে কড়া ভাষায় তোপ দাগলেন তিনি। অনুরাগ টুইট করলেন, আমাদের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী খুবই ভীতু। ওর নিজের পুলিশ, নিজের গুন্ডা, নিজের সেনা ও নিরাপত্তা বাহিনী নিরস্ত্র প্রতিবাদীদের উপরে হামলা চালাচ্ছে। জঘন্যতম পর্যায় পৌঁছে গিয়েছেন অমিত শাহ। এই পশুটার উপরে ইতিহাস থুতু দেবে।

অনুরাগের এই বিস্ফোরক টুইট মুহূর্তে ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রথম থেকেই সিএএ বিরোধী আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। এর জন্য একাধিক বার হুমকিও পেয়েছিলেন তিনি। জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়াদের উপরে পুলিশি বর্বরতারও নিন্দা করেছিলেন অনুরাগ কাশ্যপ।

কিছুদিন আগে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের কাছে বলেছিলেন, তিবাদ করলেই হুমকি আসে। ঘর থেকে বেরস না, দেখে নেব তোর ছবি কীভাবে চলে, ইত্যাদি হুমকি আসতেই থাকে। আর এই ব্যাপারটা খুবই নিয়মমাফিক পদ্ধতিতে চলছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I