করাচি: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাত ধরেই ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হয়েছে রামমন্দিরের। দীর্ঘদিনের লড়াইয়ের অবসানে তৈরি হয়েছে নতুন এক যুগের। রাষ্ট্রের প্রতিনিধি হিসেবে ভূমিপুজো করেছেন প্রধানমন্ত্রী। ভারতে রামমন্দিরের ভিতপুজোয় স্বস্তি পেলেন প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার৷

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী অযোধ্যাতে ভগবান রামের উদ্দেশ্যে উত্সর্গ করা এই মন্দির নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করার সময়, বিশ্বজুড়ে শুভেচ্ছার উত্সর্গ ও সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁদের বার্তা পাঠিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন অনেকে৷ এঁদের মধ্যে ছিলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন লেগ-স্পিনার কানেরিয়া৷

পাকিস্তানের প্রাক্তন এই হিন্দু ক্রিকেটার নিজের টুইটারে রামের ছবি পোস্ট করে সারা বিশ্বের হিন্দুদের কাছে এটি এক ঐতিহাসিক দিন বলে অ্যাখ্যা দিয়েছেন৷ টুইটারে প্রাক্তন পাক লেগ-স্পিনার কানেরিয়া লেখেন, “Lord Ram is our ideal”. He also said that “the beauty of Lord Ram lies in his character and not in his name”, adding that “he is a symbol of victory of good over evil.” অর্থাৎ ভগবান রাম আমাদের আদর্শ। তিনি আরও বলেন “ভগবান রামের সৌন্দর্য তাঁর চরিত্রে অন্তর্ভুক্ত, তাঁর নামে নয়”৷ তিনি আরও যোগ করেছেন, “তিনি মন্দের উপরে ভালোর প্রতীক।”

বুধবার মাত্র ৩২ সেকেন্ডের জন্য স্থায়ী ছিল সেই পূন্য লগ্ন। ১২ টা ৪৪ মিনিট ৮ সেকেন্ড থেকে ১২ টা ৪৪ মিনিট ৪০ সেকেন্ড পর্যন্ত স্থায়ী মহরতের মধ্যেই কাঙ্খিত রামমন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। পুজোয় উপস্থিত ছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। ছিলেন আরএসএশ প্রধান মোহন ভগবত। এছাড়াও ছিলেন সাধু-সন্তরা।

আনুষ্ঠানিকভাবে ভূমি পুজোর পর বক্তব্য রাখতে গিয়ে মোদী বলেন যে, রাম মন্দিরটি ভারতীয় সংস্কৃতির একটি ‘আধুনিক’ প্রতীক হবে এবং ভবিষ্যতের প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করবে। তিনি জানান, ‘শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র ট্রাস্ট আমাকে এক মহান ইতিহাসের সাক্ষী থাকার সুযোগ দিয়েছেন। এটা আমার সৌভাগ্য। আমাকে তো এখানে আসতে হতই। দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের মতোই রাম মন্দিরের জন্য কয়েক শতাব্দী ধরে অনেকে আন্দোলন করেছেন। তারই ফল পেয়েছি আমরা।’

এর আগে কানেরিয়া ভারত এবং প্রধানমন্ত্রী মোদীর বিরুদ্ধে বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য পাকিস্তান দলে তাঁর এক সময়ের সতীর্থ শহীদ আফ্রিদিকে তিরস্কার করেছিলেন। পাকিস্তানের প্রাক্তন এই ক্রিকেটার নাম না-করে আফ্রিদির উদ্যেশে বলেছিলেন, কোনও অল-রাউন্ডারের কোনও বক্তব্য দেওয়ার আগে চিন্তা করা উচিত এবং পাকিস্তান ক্রিকেটে এর কী প্রভাব ফেলবে৷ পাকিস্তানের জাতীয় দলের হয়ে খেলা হাতেগোনা হিন্দু ক্রিকেটারের মধ্যে কানেরিয়া ছিলেন একজন৷

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।