নিজের ঠাকুরঘরে পুজো করে ধূপ জ্বালান প্রয় প্রত্যেকেই। হিন্দু মহিলারা ধূপ ছাড়া তাঁদের পুজো সম্পূর্ণ করতে পারেন না। সুগন্ধী ধূপ জ্বালিয় এদিন শুরু করেন অনেকে। আবার সূর্যাস্তের পর ধূপ জ্বালিয়েই বাড়িতে ‘সন্ধে’ দেখান। কিন্তু এই ধূপ বা আগরবাতি নিজের ঠাকুরঘরে জ্বালানো একদমই উচিৎ নয়। সেকথা কি আপনি জানেন?

সনাতন হিন্দু ধর্মমতে, যে ধূপ জ্বালানো শেষকৃত্যে বাধ্যতামূলক, কিভাবে সেই ধূপে সন্তুষ্ট হতে পারেন ভগবান? শাস্ত্রে বলে বাঁশ হল সন্তানের প্রতীক। আর সেটা জ্বালিয়ে দেওয়া মানে পরবর্তী প্রজন্ম শেষ হয়ে যাওয়ার ইঙ্গিত দেওয়া। শুধু ধর্মীয় কারণেই নয়, ধূপ না জ্বালানোর পিছনে বৈজ্ঞানিক কারণও রয়েছে। বলা হয়, ধূপের মধ্যে এমন কিছু কেমিক্যাল থাকে, যা থেকে নেগেটিভ এনার্জি ছড়ায়। ফলে এগুলি বাড়ির মধ্যে না জ্বালানোই উচিৎ।

সুগন্ধ ছড়াতে ধূপ প্রস্ততকারকেরা এর মধ্যে পলিঅ্যারোমাটিক হাইড্রোকার্বন দিয়ে থাকে। যা থেকে হাঁপানি, মাথা ব্যাথা, কাশি ইত্যাদি হতে পারে। হিন্দু শাস্ত্রে কোথাও পুজোর জন্য ধূপ বা আগরবাতি ব্যবহারের কথা নেই।