কলকাতা:  একটা সময় গঙ্গার দুপাশ জুড়ে শিল্পের কারবার। কিন্তু একের পর এক শিল্প বন্ধ হওয়াতে এখনও শুধুই অন্ধকার সেখানে। কোনও রকমে কয়েকটি চললেও সেগুলির অবস্থাও খুব একটা ভালো নয়। তবে কিছুটা হলেও আশার আলো দেখাচ্ছে ইতালির এক সংস্থা। উত্তরপাড়ার হিন্দুস্থান মোটরসের পড়ে থাকায় কারখানায় মেট্রো রেলের কোচ তৈরির ভাবনা চিন্তা করছে এই সংস্থাটি। ইতিমধ্যে ইতালির সংস্থার ভারতীয় আধিকারিকরা বন্ধ অবস্থায় পড়ে থাকা হিন্দুস্থান মোটারসের কারখানা ঘুরে দেখে গিয়েছে বলে জানাচ্ছে বাংলা এক সংবাদমাধ্যম।

প্রকাশিত সংবাদ অনুযায়ী, কারখানা এলাকা ঘুরে দেখে বেশ কিছু আধিকারিকরা। আর এরপরেই রাজ্যের শিল্পসচিব বন্দনা যাদবের সঙ্গে এই সংক্রান্ত বৈঠক করে। কলকাতার শিল্পভবনে এই বৈঠক হয়। যদিও এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কেউ কোনও কিছু বলতে নারাজ বলে জানাচ্ছে ওই সংবাদমাধ্যম। কারণ হিসাবে জানাচ্ছে, এখনও পর্যন্ত কিছুই ফাইনাল হয়নি। সবটাই আলোচনার স্তরে রয়েছে। তবে রাজ্য সরকার বিশাল এই কর্মকাণ্ড যাতে বাংলাতেই ঘটে সেজন্যে সবরকম চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে।

প্রকাশিত খবর মোতাবেক, হিন্দুমোটরসের কারখানায় তৈরি হবে এই মেট্রোর কোচগুলি। এরপর সেগুলিকে বড় ট্রেলারে করে পুনে নিয়ে যাওয়া হবে বলে জানা যাচ্ছে। এজন্যে স্থানীয় রাস্তার বিদ্যুৎবাহী তারগুলিকে উঁচু করার জন্যে রাজ্যের কাছে ওই শিল্পসংস্থা প্রস্তাব দিয়েছে বলেও জানাচ্ছে বাংলার জনপ্রিয় এই সংবাদমাধ্যম।

হিন্দমোটরস থেকে প্রথম গাড়ি তৈরি হয়। ইতিহাস তৈরি করা অ্যাম্ব্যাসেডর গাড়ি তৈরি হয় সেখান থেকেই। কিন্তু হঠাত করেও ২০১৪ সালে বন্ধ হয়ে যায় হিন্দ মোটরস। কারখানার একটি ছোট ইউনিট কিনে নেয় উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড় ওয়াগান লিমিটেড। সেই ইউনিটে মালগাড়ির যন্ত্রাংশ, চাকা তৈরির কাজ হচ্ছে। রেলের মালগাড়ি তৈরির বরাতও পায় সংস্থাটি। কয়েক বছর হল এখানে ইউএমইউ লোকাল ট্রেন তৈরির কাজও হচ্ছে।

এ বার সেখান থেকেই মেট্রো রেলের কোচ তৈরির পরিকল্পনা চলছে বলে সূত্রের খবর। প্রকাশিত খবর মোতাবেক, টিটাগড় ওয়াগন লিমিটেডের সঙ্গে ইতালির ওই সংস্থার জোট রয়েছে। সেই সংস্থাটি পুণেতে মেট্রো রেলের কাজের বরাত পেয়েছে। ফলে হিন্দমোটারস থেকেই এই কাজ ইতালির ওই সংস্থা করতে চাইছে বলে জানা যাচ্ছে। সূত্র- বাংলা এক সংবাদমাধ্যম।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।