স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: দুর্গা পুজো শেষে কোজাগরী লক্ষ্মীর আরাধনা৷ বাড়িতে মুখে মুখে ফিরছে ‘এসো মা লক্ষ্মী ঘরে বসো৷’ ধনদেবীর আরাধনায় চারদিকে জাঁকজমক৷ গৃহস্থের ব্যস্ততা৷ কিন্তু অগ্নিমূল্যে নাভিশ্বাস উঠছে মধ্যবিত্তের৷ প্রতিমা থেকে ফল-মূল, ফুলের বাজার৷ হাত দিলেই ছ্যাঁকা লাগার জোগাড়৷ হাওড়ার মল্লিক ঘাটে গোলাপের সুবাস তখন আর নাখে ঢুকছে না৷ ফুলের চড়া দামে তখন চোখ ছানাবড়া৷

ফুল বিক্রেতাদের যুক্তি, বেশি দামে কিনতে হচ্ছে ফুল৷ ফলে পাইকারি বাজারেই দাম তুলনায় বেশ খানিকটা বেশি৷ খুচরো বাজারে ফুলের দামে তাই ছ্যাঁকা লাগার জোগাড়৷ তবে ফুলের দাম বেশি হলেও জোগান রয়েছে যথেষ্টই৷ রেস্তো থাকলে গাঁদা থেকে পদ্ম পেতে বেগ পেতে হবে না৷

এক নজরে মল্লিক ঘাটে ফুলে দাম..
ফুল (কেজি/প্রতিটি)                              দাম
খুচরো গাঁদা                                   ১৯০/২৫০ টাকা
গাঁদার এক ডজন বড় মালা                 ৪০০/৪৫০ টাকা
দোপাটি                                        ১৫০ টাকা
পদ্ম                                             ২০/২৫ টাকা
একটি রজনীগন্ধা মালা                      ৩০ টাকা
এক ডজন পদ্ম                               ৩৫০/৪০০ টাকা
একটি ধানের ছড়া                           ৩৫ টাকা
একটি তালের ফোপড়                       ২০ টাকা

ফুলের দামই লাগাম ছাডা়৷ বাজার করতে বেড়িয়ে হাঁসফাঁস অবস্থা আম বাঙালির৷ নির্দিষ্ট রেস্তোয় কোন দিকে বাজেট কমিয়ে পুজো করা যায় এখন তার হিসাবেই ব্যস্ত গৃহকর্তারা৷