চন্ডীগড়: দুষণ রোধে দিল্লিতে বাজি বিক্রি আগেই নিষিদ্ধ ঘোষণা করে রায় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট৷ এবার দীপাবলীর দিন বাজি ফাটানো নিয়ে সময়সীমা বেধে দিল চন্ডীগড় হাইকোর্ট৷ পাঞ্জাব, হরিয়ানা ও চন্ডীগড়ে মাত্র তিন ঘন্টা বাজি ফাটানো যাবে বলে রায় দিল বিচারপতি এ কে মিত্তল এবং বিচারপতি অমিত রাওয়ালের ডিভিশন বেঞ্চ৷

দীপাবলীর দিন বাজি ফাটানোর কারণে বাতাসে দুষণের মাত্রা বহুগুণ বেড়ে যায়৷ শব্দবাজির দাপটে ছড়ায় শব্দদুষণ৷ এই সময় দুষণের মাত্রা লাগাম ছাড়া বেড়ে যাওয়ায় চিন্তিত পরিবেশবিদরা৷ দুষণ বেড়ে যাওয়া নিয়ে উদ্বিগ্ন দেশের শীর্ষ আদালত৷ এবার একই উদ্বেগ প্রকাশ করে পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্ট দীপাবলীর দিন মাত্র তিন ঘন্টা বাজি ফাটানো যাবে বলে জানিয়ে দিল৷ এদিন বিচারপতি এ কে মিত্তল এবং বিচারপতি অমিত রাওয়ালের ডিভিশন বেঞ্চ জানায়, ওই দিন সন্ধ্যে ৬:৩০টা থেকে রাত ৯:৩০টা পর্যন্ত বাজি ফাটানো যাবে৷ সেই সঙ্গে বাজি বিক্রেতাদের অস্থায়ী লাইসেন্স দেওয়ার আগে একাধিক নির্দেশিকা জারি করেছে হাইকোর্ট৷

বরিষ্ঠ আইনজীবী অনুপম গুপ্তা জানান, ডেপুটি কমিশনার, পুলিশ কমিশনারদের হাইকোর্টের নির্দেশ পালন করার কথা জানানো হয়েছে৷ সেই সঙ্গে বাজি বিক্রেতাদের জন্য নির্দিষ্ট জায়গায় বাজি বিক্রি করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ এ সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নির্দেশ পুলিশকে দেওয়া হয়েছে৷ এছাডা় হাইকোর্টের নির্দেশ ছাড়া স্থায়ী লাইসেন্স কাউকে দিতে পারবে না পুলিশ৷ জানিয়েছে কোর্ট৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।