কলকাতা:  মতুয়া সঙ্ঘের সদস্য মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর এবং শান্তনু ঠাকুরকে এখনই গ্রেফতার নয় নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের। বিজেপির সদস্য তথা মতুয়া সংঘের বড়মা বীণাপাণি দেবী পুত্র মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর এবং শান্তনু ঠাকুর এর বিরুদ্ধে পুলিশ কোন কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারবে না। শুনানিতে এমনটাই জানাল কলকাতা হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে আদালত আরও জানিয়েছে যে, আগামী দু সপ্তাহ পুলিশ তাদের গ্রেফতার করতে পারবেন না পাশাপাশি গাইঘাটা থানায় সপ্তাহে একদিন অফিসার ইনচার্জ এর সঙ্গে দেখা করতে হবে। এমনই নির্দেশ দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি জয়মাল্য বাগচীর ডিভিশন বেঞ্চ।

তৃণমূলের সাংসদ তথা মতুয়া সংঘের সদস্য মমতাবালা ঠাকুর গত ফেব্রুয়ারি গাইঘাটা থানায় মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর এবং শান্তনু ঠাকুরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। বড় মা বীণাপাণি দেবীর নাম করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে দেওয়া চিঠিতে লেখা ছিল আপনি এনআরসিটা মেনে নিন এতে মতুয়া সম্প্রদায়ের মানুষের অনেক উপকার হবে। সেই চিঠিতে জাল সই করা হয়েছে বলে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ মমতা বালা ঠাকুরের। কারণ হিসেবে তিনি জানান বড়মা বীণাপাণি দেবী সে সময় খুবই অসুস্থ ছিলেন। তার পক্ষ্যে সই করা সম্ভব নয়। ফলে তার সুইটি জাল করা হয়েছিল বলে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ মমতার।

এরপরেই মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর এবং শান্তনুর ঠাকুর তারা কলকাতা হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন জানান। আজ বৃহস্পতিবার সেই মামলার শুনানিতে সরকারপক্ষের আইনজীবী ও মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর এবং শান্তনুর ঠাকুরের পক্ষের আইনজীবীর বক্তব্য শোনার পর তিনি নির্দেশ দেন যে আগামী দু সপ্তাহ এই দুজন বিরুদ্ধে কোন কঠোর পদক্ষেপ নিতে পারবে না গাইঘাটা থানার পুলিশ।