কেপটাউন: আপনি যদি একজন সত্যিকারের ক্রিকেটপ্রেমী হন, তাহলে ১৪ বছর আগে জোহানেসবার্গের সেই ঐতিহাসিক ম্যাচ আপনার স্মৃতিতে নিশ্চিতভাবে খোদাই হয়ে থাকবে। আধুনিক ক্রিকেটে এসেছে রানের জোয়ার। কিন্তু প্রায় দেড় দশক আগে ওয়ান-ডে ক্রিকেটে দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বাধিক রান তাড়া করে জয়ের নজির আজকের টি-২০ ক্রিকেটের যুগেও অক্ষত। সেদিন অস্ট্রেলিয়ার ৪৩৫ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করে জয়ের পর ড্রেসিংরুম থেকে গ্রেম স্মিথ, এবি ডি’ভিলিয়ার্সদের উচ্ছ্বাসের লাফ আজও টাটকা ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে।

ব্যাট হাতে সেদিন প্রোটিয়াদের সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন হার্সেল গিবস। ২১টি চার ও ৭টি ছয়ে সাজানো গিবসের ১১১ বলে ১৭৫ রানের সেই ইনিংস রয়ে গিয়েছে ওয়ান-ডে ক্রিকেটে অন্যতম সেরা ইনিংস হিসেবে। প্রথমে ব্যাট করে সেদিন রিকি পন্টিং’য়ের ১০৫ বলে ১৬৪, মাইক হাসি, সাইমন কাটিচ, অ্যাডাম গিলক্রিস্টদের অর্ধশতরানে ভর করে ৪৩৪ রান তিলেছিল ক্যাঙ্গারুবাহিনী। কিন্তু জবাবে অস্ট্রেলিয়ার বাড়া ভাতে সেদিন একপ্রকার ছাই ঢেলে দিয়েছিলেন ডাকাবুকো প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান গিবস।

এতদিন কেরিয়ারের অন্যতম মূল্যবান স্মারক হিসেবে নিজের কাছেই রেখেছিলেন। ১৭৫ হাঁকানো সেই ঐতিহাসিক ব্যাট এবার করোনা অর্থসাহায্যে নিলামে তুলছেন গিবস। শুক্রবার টুইটারে অটোগ্রাফ করা সেই ব্যাটের ছবি টুইটারে পোস্ট করে তা নিলামে তোলার সিদ্ধান্তের কথা অনুরাগীদের সঙ্গে শেয়ার করে নিয়েছেন প্রাক্তন তারকা ব্যাটসম্যান। গিবসের টুইটের কিছুক্ষণের মধ্যেই গিবসকে শুভেচ্ছা জানান তৎকালীন কোচ মিকি আর্থার। তিনি লেখেন, ‘দারুণ কাজ হার্স। এটা মহামূল্যবান।’

উল্লেখ্য, চলতি সপ্তাহেই করোনা অর্থসাহায্যে আইপিএলে খেলা বিশেষ একটি ম্যাচের জার্সি-ব্যাট নিলামে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন গিবসের একদা সতীর্থ এবি ডি’ভিলিয়ার্স। করোনায় অর্থসাহায্যে ২০১৬ আইপিএলে গুজরাত লায়ন্সের বিরুদ্ধে স্মরণীয় ম্যাচের সংগৃহীত কিছু স্মারক বিরাট কোহলির সঙ্গে যৌথভাবে নিলামে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবি ডি’ভিলিয়ার্স। ওই ম্যাচে বিরাট-ডি’ভিলিয়ার্সের পার্টনারশিপে সংগৃহীত ৯৬ বলে ২২৯ রান এখনও আইপিএলে সর্বাধিক রানের পার্টনারশিপ।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।