প্রসেনজিৎ চৌধুরী: কোন হাওয়া শক্তিশালী ? রাজনীতির গরম হাওয়া নাকি প্রকৃতির ‘বরফিলি বায়ু’ ? হিন্দিতে এর মানে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ। ইতিমধ্যে রাঁচির পারদ সূচক ৪ ডিগ্রিতে নেমেছে। আর ম্যাকলাক্সিগঞ্জের মতো ছোট পাহাড়ি শহরে শনিবার তো ০ ডিগ্রিতেই নেমে নজির তৈরি করেছিল। এমনই প্রবল শীতের দাপটে কাঁপতে থাকা ঝাড়খণ্ডের নতুন অ-বিজেপি সরকারের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চার হেমন্ত সোরেন।

বিধানসভা নির্বাচনে জেএমএম-কংগ্রেস-আরজেডি মহাজোটের তরফে তিনিই মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী ছিলেন। জোট জয়ী হয়েছে। আর সেই জয়কে কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতার সুফল হিসেবেই দেখছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অ-বিজেপি নেতৃত্বরা। রাঁচির মোহরাবাদী ময়দানে হেমন্ত সোরেনের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে থাকছেন একাধিক অ-বিজেপি সরকারের মুখ্যমন্ত্রী ও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীরা।

এর মধ্যে অন্যতম দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। কেজরিওয়ালের রাজনৈতিক অস্তিত্বের পরীক্ষা সামনেই। এসে পড়েছে দিল্লি বিধানসভার নির্বাচন। বিজেপি দিল্লি দখলে মরিয়া। তার মাঝে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ঘিরে রক্তাক্ত ও অগ্নিগর্ভ আন্দোলনের মুখ দেখেছে উত্তর প্রদেশ ও দিল্লি। সূত্রের খবর, মহাজোট ও জেএমএমের পৃথক বৈঠকে স্থির হয়েছে, কোনও অবস্থাতেই ঝাড়খণ্ড জুড়ে সিএএ জারি করা হবে না। হেমন্ত সোরেনও এরকমই ইঙ্গিত দিয়েছেন।ফলে প্রকৃতির হাড়কাঁপানো শীতল হাওয়ায় হেমন্তের শপথ অনুষ্ঠান অ-বিজেপি সরকার দিতে চলেছে গরম পাওয়ার বার্তা।

শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে থাকছেন কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি,বি এস পি. জে ডি এস সহ বাম নেতৃত্ব। আসছেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, রাহুল গান্ধী, কর্ণাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী সহ অনেকে। সিপিআই(এএম) সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি, সিপিআই নেতা ডি.রাজা। তাৎপর্য়পূর্ণ ঘটনা, হেমন্ত সোরেনের শপথ অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিজেপি বিরোধী নেতার ছবি দেওয়া হয়েছে রাঁচির রাজ পথে। তাতে প্রবল উপস্থিতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ছবিতে উঁকি দিচ্ছেন ইয়েচুরিও।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

Tree-bute: রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও