নয়াদিল্লি: পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে উত্তর ভারত জুড়ে চলছে ব্যাপক বৃষ্টি। বৃহস্পতিবার সন্ধেয় কয়েক ঘণ্টা ধরে চলে সেই বৃষ্টি, সঙ্গে প্রবল বেগে হাওয়া। যার জেরে তাপমাত্রাও কমতে শুরু করেছে। এমনকি বৃষ্টির জেরে বিমান পরিষেবাও ব্যহত হয়েছে।

এদিন সন্ধেয় দিল্লিতে অন্তত ২ ঘণ্টা ধরে চলে বৃষ্টি। সেইসঙ্গে প্রচণ্ড ঠাণ্ডা হাওয়া। শনিবার থেকেই তাপমাত্রা নামতে শুরু করবে বলে জানিয়েছেন মৌসম ভবনের এক আধিকারিক। তাপমাত্রা ১০-এর নীচে নেমে যেতে পারে বলে জানা গিয়েছে।

বৃহস্পতিবার দিল্লির সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১২.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দুটিই স্বাভাবিকের থেকে কম। তবে এই বৃষ্টির ফলে দিল্লির দূষণ কিছুটা কমার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে বলে মনে করছেন পরিবেশবিদরা। ক্রমশ ভালো হচ্ছে এয়ার কোয়ালিটি।

বৃষ্টি ও হাওয়ার জন্য কয়েকটি বিমান অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে। দিল্লিগামী দুটি ট্রেন জয়পুরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এর মধ্যে একটি কলকাতা থেকে যাচ্ছিল। তিনটি বিমান উড়তে পারেনি দিল্লি বিমানবন্দর থেকে।

শুধু দিল্লি নয়, উত্তরাখণ্ডে জারি হয়েছে রেড অ্যালার্ট। পঞ্জাব, হরিয়ানা ও রাজস্থানেও হালকা থেকে ভারী বৃষ্টিপাত হবে। উত্তরাখণ্ডে প্রবল তুষারপাতের আশঙ্কায় সব স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিশেষত রুদ্রপ্রয়াগ, উত্তরকাশী ও দেরাদুনে তুষারপাতের আশঙ্কা বেশি। তুষারপাত হয়েছে কাশ্মীরেও। কাশ্মীর ও লাদাখে জারি হয়েছে অরেঞ্জ অ্যালার্ট। ২৭০ কিলোমিটার জম্মু-শ্রীনগর ন্যাশনাল হাইওয়ে বন্ধ রাখা হয়েছে। লে- তে তাপমাত্রা মাইনাস ১০ ডিগ্রি ছুঁয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

Tree-bute: রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও