স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : উত্তরবঙ্গে চলছে ভারী বৃষ্টি। আরও ২৪ ঘন্টা উত্তরবঙ্গের ৫ জেলায় ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি চলবে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। সব স্থানেই দেখা যাচ্ছে গড়ে ৮০-১০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি সিকিমেও প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছে বলে জানাচ্ছে হাওয়া অফিস।

রাজস্থান থেকে বিহার পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে একটি নিম্নচাপ অক্ষরেখা। এর প্রভাবেই বঙ্গোপসাগর থেকে প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকেছে পূর্ব ও উত্তর পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে। তার জেরেই উত্তরবঙ্গ সহ উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে চলবে অতি ভারী বৃষ্টি। উত্তরবঙ্গে দার্জিলিং সহ ৫ জেলায় ভারী বৃষ্টির সতর্কতা রয়েছে। কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ারের কিছু এলাকায় ২০০ মিলিমিটার বা তারও বেশি বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা রয়েছে। ভারী বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে মালদা, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে। শনিবারও ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে উত্তরবঙ্গে। জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ারে অতি ভারী বৃষ্টি হতে পারে। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের বাকি জেলা দার্জিলিং, কালিম্পং, মালদা, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। রবিবার থেকে উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির পরিমাণ কমবে।

কোচবিহারে ৭৫.৯, জলপাইগুড়িতে ১৪৫.৮, শিলিগুড়িতে ৭৮.৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি ঝালং-এ ৭৭.৬, এনএইচ ৩১-তে ৮৪.৪, ফালাকাটায় ৭০.২, মাথাভাঙা ১৩৫.০ , আলিপুরদুয়ারে ১০৫.০, কোচবিহারে ৯৮.২, চেপানে ৭৯.০, বারোবিশা ১০৭ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। সিকিমের মঙ্গনে ১৪৭.২, সিঙ্ঘিক ১০২.৮, সঙ্কলনে ১৬৬.৬ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। বৃহস্পতিবার ঝালং, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, বারভিশা, মাথাভাঙা , ফালাকটা, ছেপান, হাসিমারায় ভাল বৃষ্টি হয়। এই সমস্ত অঞ্চলে বৃষ্টির পরিমান ছিল যথাক্রমে ২৯১.৩, ২৯০.৬, ২৬২.৬, ২৫৫.০, ১৬৬.৮, ১২০.৪, ১১০.০, ৭৫.৪ মিলিমিটার।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ