স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: গত কয়েকদিন একটু স্বস্তি মিললেও ফের বাড়ছে গরম। প্রবল উত্তাপ দেশ জুড়ে। রাজ্যের একাধিক জায়গায় তাপপ্রবাহের আশঙ্কার কথা শোনাল হাওয়া অফিস।

জানা গিয়েছে, সোমবার থেকেই জারি থাকবে তাপপ্রবাহ। কলকাতার ও আশেপাশের ছয় জেলায় তাপমাত্রা থাকবে স্বাভাবিকের থেকে ২-৩ ডিগ্রি বেশি। মূলত কলকাতা, দুই ২৪ পরগণা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া, পূর্ব বর্ধমান ও মুর্শিদাবাদে আগামী তিনদিন এই তাপমাত্রা থাকবে।

এছাড়া তাপপ্রবাহের সতর্কবার্তাও দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। সেই তালিকায় রয়েছে পুরুলিয়া, পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম, পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রাম। আগামী তিন দিন জারি থাকবে সেই তাপপ্রবাহ।

সোমবার কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশি। আর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.৮ ডিগ্রি সেলসসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে ২ ডিগ্রি বেশি। শুধু উচ্চ তাপমাত্রাই নয়, সঙ্গে থাকবে অস্বস্তিকর আবহাওয়াও।

হাওয়া অফিসের রিপোর্ট অনুযায়ী দক্ষিণবঙ্গে ১৫ জুন বর্ষা প্রবেশ করার কথা, কারন কেরলে যেদিন বর্ষা প্রবেশ করে নিয়ম অনুযায়ী তাঁর দিন চারেক পরে উত্তরবঙ্গে বর্ষা আসে। তারপর তার আর দিন তিন চার পর দক্ষিণবঙ্গে মৌসুমি বায়ু পাকাপাকিভাবে জায়গা করে নেওয়া উচিৎ স্বাভাবিক নিয়ম অনুযায়ী। কিন্তু এখনও পরিস্থিতি অনুকূল নেই সঙ্গে মাঝে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে নিম্নচাপ।

হাওয়া অফিসের খবর, আন্দামান থেকে বর্ষার একটি শাখা অবশ্য মায়ানমারের ছড়াচ্ছে। কাল, সোমবার সেটি মিজোরামে ঢুকতে পারে। মৌসম ভবনের খবর, মধ্য ভারতে আরও দিন তিনেক এই তাপের প্রবাহ বইবে। মৌসম ভবন জানাচ্ছে, এল নিনো পরিস্থিতি বা প্রশান্ত মহাসাগরের জলের তাপমাত্রা বেশি থাকার ফলে এ বার বর্ষা শুরুতে দুর্বল থাকবে।

আবহবিদদের ব্যাখ্যা, বর্ষার পথ পরিস্কার করতে হলে রাজ্যে বঙ্গোপসাগর থেকে বেশী পরিমানে জোলো বাতাসের প্রয়োজন। তা হচ্ছে না উলটে মধ্য ভারতে তাপপ্রবাহ চলায় সেখানকার গরম হাওয়া প্রবেশ করছে বাংলায়। গরম হাওয়ার জেরে বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে জোলো হাওয়া। আবহাওয়া দফতর আরও জানাচ্ছে বঙ্গোপসাগরে মেঘ রয়েছে। কিন্তু পশ্চিমের গরম হাওয়া সব মেঘকে সেখানেই আটকে রাখছে। ছড়িয়ে পরতে বাধা দিচ্ছে। ফল বর্ষার জন্য অপেক্ষা দীর্ঘায়িত হচ্ছে।