কলকাতাঃ  আপাতত গরম থেকে স্বস্তি নেই রাজ্যবাসীর। বরং আরও গরম বাড়ার পূর্বাভাস দিল আলিপুর হাওয়া অফিস। আগামী দু’দিন কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলাতে স্বাভাবিকের থেকে ২ থেকে ৩ ডিগ্রি তাপমাত্রা বেশি থাকবে বলে আলিপুর হাওয়া অফিসের তরফে পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে। আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন, দক্ষিণ এবং উত্তর ২৪ পরগণা, পূর্ব মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, নদিয়া এবং মুর্শিদাবাদে আগামী ৪৮ ঘন্টায় তাপমাত্রা আরও বাড়বে। পাশাপাশি কয়েকটি জেলাতে তাপপ্রবাহের পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, একদিকে আগামী ৪৮ ঘণ্টা গরমে পুড়বে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গ। বজায় থাকবে গরম ও আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি। সেইসঙ্গে পশ্চিমের ৫ জেলায় চলবে তাপপ্রবাহও। পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া ও পশ্চিম বর্ধমানে তাপপ্রবাহ চলবে। গরম থাকবে উপকূলের জেলাগুলোতেও। উপকূলের জেলাগুলির তাপমাত্রা ২ থেকে ৩ ডিগ্রি বেশি থাকবে বলে পূর্বাভাসে জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

এই পরিস্থিতিতে বর্ষা কবে বাংলায় ঢুকবে, তা এখনও পর্যন্ত নির্দিষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে আলিপুর হাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছে আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে উত্তরবঙ্গের কিছু অংশে ঢুকতে পারে বর্ষা। অবশেষে বর্ষার পথ খুলেছে। বেশ কিছু দিন উত্তরপূর্ব ভারতের দোরগোড়ায় থমকে থাকার পর আবার সে এগোনোর ইঙ্গিত দিয়েছে।

কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর জানিয়ে দিয়েছে, আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে উত্তরবঙ্গের কিছু অংশে ঢুকে পড়বে বর্ষা। এবার পাটীগণিতের ঐকিক নিয়মের নিয়ম অনুযায়ী অঙ্ক কষলে দক্ষিণবঙ্গে তা প্রবেশ করার কথা ২১ জুন, অর্থাৎ আগামী সপ্তাহে শুক্রবার নাগাদ দক্ষিণবঙ্গের কিছু অংশে মৌসুমি বায়ু আসতে পারে। তার জেরে মিলতে পারে বৃষ্টি। কিন্তু বর্ষা ঢুকলেই তো হল না। কতটা স্বস্তির বৃষ্টি রাজ্যবাসী পাবে তা নিয়ে শুরু হয়েছে জোড় জল্পনা। কিন্তু তাও বর্ষা ঢুকতে এখনও প্রায় ছয়দিন। আর তার আগে আগামী ৪৮ ঘন্টায় আরও ঝলসাবে রাজ্যের মানুষ।

এই অবস্থায় সাধারণ মানুষকে সুস্থ থাকার জন্যে একগুচ্ছ পরামর্শ দিচ্ছেন ডাক্তারা। তাঁরা জানাচ্ছেন, প্রচন্ড গরমে রাস্তায় বের হতে হলে পর্যাপ্ত জল খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন। পাশাপাশি জল রাখারও পরামর্শ ডাক্তারদের। খুব প্রয়োজন ছাড়া দুপুরে রাস্তায় না বের হওয়ার জন্যেই জানাচ্ছেন তাঁরা। পাশাপাশি এই সময়ে সুস্থ থাকতে তেল-মসলা খাওয়ার না খাওয়ারই কথা বলছেন ডাক্তাররা।