ওয়াশিংটন: গোটা বিশ্ব জুড়ে চলছে করোনার কালবেলা। করোনার করাল গ্রাসে জনজীবন আজ বিপর্যস্ত। গোটা দুনিয়া জুড়ে মারণ এই ভাইরাসের কোপে পর্যদস্তু লক্ষ-লক্ষ মানুষ।

তবুও মিলছে না রেহাই। কারণ, মারণ এই ভাইরাসের হাত থেকে কিভাবে মুক্তি মিলবে তার পথ এখনও অজানা। এই অবস্থায় করোনার সঙ্গে প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করে যাচ্ছেন হাজার হাজার যোদ্ধা। যারা প্রত্যকেই মানুষরুপি ভগবান। মন্দির-মসজিদে যখন করোনাতঙ্কে তালা ঝুলছে, তখন মানবরুপি এইসব ভগবানেরা আর্তের চিকিৎসায় দিনরাত এক করে দিছেন হাসপাতাল গুলিতে। নেই বিশ্রাম। প্রতিনিয়ত লড়ে যাচ্ছেন সাক্ষাৎ মৃত্যু দূতের সঙে।

ঠিক যেমন নিউ ইয়র্কের ফ্রন্টলাইন হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক কর্নেলিয়া গ্রীগস। যিনি শিশু বিশেষজ্ঞ। বর্তমানে মহিলা এই ডাক্তার সন্তান-পরিজন, কাছের মানুষ গুলির থেকে দূরে সরে করোনা সংক্রামিতদের চিকিৎসায় প্রাণপাত করে দিছেন হাসপাতালের ওর্য়াডে ওর্য়াডে কাজ করে।

সম্প্রতি টুইটারে ডাক্তার কর্নেলিয়ার একটি ভিডিও বার্তা ভাইরাল হয়েছে। যেখানে তাঁকে দেখা যাছে মুখ মাক্স দিয়ে ঢাকা। করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে পুরো শরীর মুড়ে প্রোটেকটিভ অ্যাপ্রন পড়ে আছেন তিনি।

ভিডিওটিতে তাঁকে বলতে শোনা গিয়েছে, আমার বাচ্চারা এখন খুবই ছোটো। কিন্তু আমি তাদের জানাতে চাই যে, তার মা একজন করোনা যোদ্ধা। যিনি মারণ এই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের বাঁচাতে প্রতিনিয়ত মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে যাচ্ছেন। শেষ পপর‍্যন্ত কি হবে তাঁর জানা নেই। এই যুদ্ধে তিনি জয়ীও হতে পারেন, আবার মৃত্যুও বরণ করে নিতে পারেন। তবে যতক্ষন দেহে আছে প্রান শেষপর্যন্ত লড়ে যেতে চান তিনি।

তাঁর এই হৃদয়বিদারক ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই ভারাক্রান্ত হয়ে গিয়েছে নেটিজেনদের মন। ঘরবাড়ি ছেড়ে তাঁর এই যুদ্ধক্ষেত্রকে কুর্নিশ জানাতে ভোলেননি নেটপাড়ার সদস্যরা।

এদিকে, চিনের পর লাফিয়ে লাফিয়ে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে ইউরোপ, আমেরিকা সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলিতে। মৃতের সংখ্যায় প্রতিনিয়ত রেকর্ড গড়ছে ইতালি। তারপরে রয়েছে ইরান, আমেরিকা সহ পশ্চিমি দুনিয়ার অন্যান্য দেশগুলি।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা