স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ফের তথ্য গোপনের অভিযোগ তুলে রাজ্য সরকারকে বিঁধলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেইসঙ্গে তাঁর আশঙ্কা, রাজ্য তথ্য গোপন করলে বিমার টাকা থেকে বঞ্চিত হবেন অধিকাংশ ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মীরা।

সোমবার মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে জান দিলীপ ঘোষ। হাসপাতালে কিছু পিপিই (পার্সোনাল প্রোটেকটিভ ইকুইপমেন্ট) দেন সাংসদ। মেদিনীপুর সফরের ফাঁকে সাংবাদিকদের দিলীপ বলেন, ‘‘করোনায় কতজন আক্রান্ত, কতজন মারা গিয়েছেন, সে নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি করা হয়েছে। সত্য তথ্য গোপন করা হচ্ছে। ডাক্তারদের বলা হয়েছে, মারা গেলে নিউমোনিয়া লিখতে হবে। ডেঙ্গুর সময়ে যেমন অজানা জ্বর লিখতে বলা হয়েছিল। সে জন্য সত্য সামনে আসছে না।’’

এরপরই বিজেপির রাজ্য সভাপতির দাবি, ‘‘আমার জানা, কমপক্ষে ১০ জন লোক মারা গিয়েছেন। আগে রাজ্য সরকার বলেছিল ৭। পরে হয়ে গিয়েছে ৩। আমি জানি না, ৪ জন বেঁচে উঠেছেন কি না! এ ভাবে সত্য তথ্য গোপন করলে মানুষের মনের মধ্যে ভয় বাড়বে।’’

সত্য গোপনের অসুবিধা কোথায় তা-ও ব্যাখ্যা করেছেন দিলীপ। বিজেপির রাজ্য সভাপতির কথায়, ‘‘স্বাস্থ্যকর্মী, ডাক্তারদের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ৫০ লক্ষ টাকা বিমা করেছে। রাজ্য সরকারও ১০ লক্ষ টাকা বিমা করেছে। কিন্তু এই টাকা পাবে কি করে লোকে? যদি পরীক্ষাই না হয়? করোনাভাইরাসে মারা যাওয়ার কথা স্বীকার করা না হলে তো ক্ষতিপূরণই মিলবে না।’’

এ দিন বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেন, ‘‘কেন্দ্র সরকার এত এত টাকা দিচ্ছে। এখনও পর্যন্ত প্রায় ১,৭০০ কোটি টাকা রাজ্য সরকারকে দিয়ে দিয়েছে। সেটা স্বীকার করা হচ্ছে না। সেই টাকা কোথায় গেল জানা যাচ্ছে না।’’