ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: বরখাস্ত কেন করা হল ? এই প্রশ্ন তুলে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে ধর্নায় বসলেন দিল্লির চুক্তিভিত্তিক চিকিৎসকরা। তাঁদের অভিযোগ, আগাম কোনরকম বার্তা ছাড়াই বরখাস্ত করা হয়েছে। এই নিয়ে বিতর্ক আরও জটিল হচ্ছে৷ এএনআইকে দেওয়া এক বিবৃতিতে তারা বলেন, ডাক্তারদের জন্য ৫০০০ শূন্যপদ রয়েছে। তা সত্ত্বেও কেন আমাদের বরখাস্ত করা হল?

দিল্লির সফদরজং হাসপাতাল, আরএমএল হাসপাতাল, লেডি হার্ডিঞ্জ হাসপাতাল, কালাবতী হাসপাতাল ছাড়াও বহু হাসপাতালের চুক্তিভিত্তিক নার্সিং অফিসাররা এদিন স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভে সামিল হন। তাঁদের অভিযোগ হঠাৎ কোন কারণ ছাড়াই বরখাস্ত করা হয়েছে তাদের। সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর করা একটি টুইট সূত্রে জানা গিয়েছে এমন তথ্য।

সোমবারও মন্ত্রীর বাড়িতে গিয়ে দেখা করে নিজেদের সমস্যা তুলে ধরতে গিয়েছিলেন চুক্তিভিত্তিক চিকিৎসকরা। কিন্তু তাদের জানান হয় মন্ত্রী বাড়ি নেই। এমনকি মঙ্গলবার এলেও তাদের একই কথা বলে ফিরিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ করেন তারা। দ্বিতীয়বার প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পরে বাধ্য হয়েই তারা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভে সামিল হয়েছেন। বিক্ষোভরত চিকিৎসকরা বলেন, “এখানে এসেছিলাম। কিন্তু আমাদের বলা হয়েছে মন্ত্রী বাড়ি নেই।” তাদের দাবি, “পুনরায় কাজে বহাল না করা হলে বিক্ষোভ চালিয়ে যাবেন।”

কোনরকম আগাম বার্তা কিংবা সতর্কতা ছাড়াই কাজ থেকে বরখাস্ত করে দেওয়া হয়েছে তাদের অভিযোগ এমনটাই। তাদের বরখাস্ত করার কোন সঠিক কারণই অনুমান করতে পারছেন না তারা। বিক্ষোভকারীরা জানিয়েছেন “কর্মী নিয়োগের প্রয়োজন থাকলে কেন আমাদের বরখাস্ত করা হল? ওরা’ইউজ এন্ড থ্রো’ পদ্ধতি নিয়েছে।”